স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে রাজ্য তথা দেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র হচ্ছে বারাকপুর। সেই কেন্দ্রে প্রাক্তন সহযোদ্ধা অর্জুন সিং-কে পরাস্ত করতে গত দু’বারের সাংসদের ভরসা তৃণমূলের উন্নয়ন।

বারাকপুরের তৃণমূল প্রার্থী দীনেশ ত্রিবেদী প্রচারে বেরিয়ে সব সময় একটা কথাই বলে এসেছেন, ‘ভোট হল মানুষের জন্য। মানুষ ভোট দেবে। উন্নয়নের ভোটে তৃণমূল কংগ্রেস জিতবে৷’ শুক্রবার ফের একই কথা বললেন বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী দীনেশ ত্রিবেদী৷

উত্তর ২৪ পরগণার বারাসতে জেলা শাসকের দফতরে নমিনেশন পত্র জমা দিলেন বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী দীনেশ ত্রিবেদী। বারাকপুর লোকসভা এলাকার বিভিন্ন বিধানসভার তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক এবং বিভিন্ন পুরসভার চেয়ারম্যান ও জন প্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে শুক্রবার দুপুরে বারাসাতে জেলা শাসকের দফতরে গিয়ে নিজের নমিনেশন পত্র জমা দিলেন তিনি৷

নিজের জয়ের বিষয়ে একশো শতাংশ আশাবাদী বারাকপুরের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী। প্রায় এক হাজার দলীয় কর্মী সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে দীনেশ বাবু এদিন তার নমিনেশন পত্র জমা দেন। উত্তর ২৪ পরগণা জেলা সভাপতি তথা রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এদিন দীনেশ ত্রিবেদীর সঙ্গে নমিনেশন পত্র জমা দেওয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন।

অর্জুন সিং নিজে প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রে। কিন্তু দল তাকে প্রার্থী করেনি। পরিবর্তে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দীনেশ ত্রিবেদীর ভোট বৈতরণী পার করার গুরু দায়িত্ব চাপিয়েছিলেন তার কাঁধেই। সেই ক্ষোভ থেকেই নাকি দল বদল করে বিরোধী বিজেপি শিবিরে নাম লিখিয়েছেন অর্জুন সিং। যদিও দল বদলের কারণ হিসেবে অন্য কারণ দেখিয়েছিলেন অর্জুন।

দলের নবাগত সদস্যকে বারাকপুর কেন্দ্র থেকেই প্রার্থী করেছে বিজেপি। সেই কারণেই বিশেষ গুরুত্ব পেয়েছে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বারাকপুর কেন্দ্র। প্রার্থী ঘোষণা হতেই ক্রমশ বাড়ছে বারাকপুরের রাজনৈতিক উত্তাপ। গত দুই লোকসভা কেন্দ্রে দীনেশ ত্রিবেদীর ভোটের বৈতরণী পার করার দায়িত্ব ছিল অর্জুনের কাঁধে। নিজের দায়িত্ব যথাযথ পালন করেছিলেন তিনি। এবারে সেই সেনাপতিই বিরোধী প্রার্থী। এই অবস্থায় বারাকপুর কেন্দ্রে দীনেশ ত্রিবেদী হ্যাট্রিক করতে পারবেন কিনা সেটা জানা যাবে ২৩ মে।