কলকাতা: রাজ্যসভায় বাতিল নির্দল প্রার্থী দীনেশ বাজাজের মনোনয়ন । মনোনয়নে ত্রুটি থাকায় বাতিল হল তাঁর মনোনয়ন। এরফলে রাজ্যসভায় আর ভোটাভুটির প্রয়োজন রইল না।

সোমবার ছিল মনোনয়নপত্রের স্ক্রুটিনির দিন। স্ক্রুটিনি-পর্বে বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী ও বিরোধী দল কংগ্রেসের নেতা মনোজ চক্রবর্তী হলফনামা দিয়ে মৌসম নূর ও দীনেশ বাজাজের মনোনয়নে ত্রুটির অভিযোগ তোলেন। এরপর দ্বিতীয় দফার শুনানিতে বাতিল হল দীনেশ বাজাজের মনোনয়ন।

বাম-কংগ্রেস সমর্থিত বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য, তৃণমূলের অর্পিতা ঘোষ, দীনেশ ত্রিবেদী, সুব্রত বক্সির মনোনয়নে কোনও ত্রুটি ছিল না। রাজ্যসভায় শূন্যপদের সংখ্যা যা, প্রার্থীর সংখ্যাও তাই, ফলে রাজ্যসভায় আর ভোটাভুটির প্রয়োজন রইল না।

সোমবার ছিল মনোনয়নপত্রের স্ক্রুটিনির দিন। স্ক্রুটিনি-পর্বে বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী ও বিরোধী দল কংগ্রেসের নেতা মনোজ চক্রবর্তী হলফনামা দিয়ে মৌসম নূর ও দীনেশ বাজাজের মনোনয়নে ত্রুটির অভিযোগ তোলেন।

দুই প্রার্থীর বিরুদ্ধে অভিযোগ, মনোনয়ন পেশের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নিজেদের বিরুদ্ধে মামলা সম্পর্কে তাঁরা তথ্য দেননি। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতেই শুনানি হয় মঙ্গলবার বিকেলে।

দীনেশ বাজাজ এ প্রসঙ্গে জানিয়েছেন, সময়ের অভাবের কারণেই তিনি সমস্ত আইনি নথি তিনি জমা দিতে পারেননি। এরপর দল কী ব্যবস্থা নেবে, কী পরিকল্পনা করা হবে, সেটাও আলোচনা স্বাপেক্ষ বলে জানিয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যের বক্তব্য, ‘‌তৃণমূল শেষ মুহূর্তে দীনেশ বাজাজকে প্রার্থী করে একটা চাল দেওয়ার চেষ্টা করেছিল ঠিকই, কিন্তু আমি জানতাম, বাম ও কংগ্রেসের বিধায়কদের কেনাবেচা করা যায় না, তাই জয়ের বিষয়ে নিশ্চিত ছিলাম।’‌

সপ্তম পর্বের দশভূজা লুভা নাহিদ চৌধুরী।