স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: কিশোর কুমারকে ৯১ তম জন্মদিনে শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে চরম ভুল করে বসলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সোশ্যাল মিডিয়ায় মান্না দে’র গান পোস্ট করে কিশোরকে শ্রদ্ধা জানালেন তিনি। এরপরই নেটিজেনদের তোপের মুখে দিলীপ।

আজ, ৪ অগাস্ট ভারতীয় সঙ্গীত জগতের মুকুটহীন সম্রাট, একাধারে কন্ঠশিল্পী, সুরকার, অভিনেতা, চিত্র নাট্যকার, গীতিকার, চিত্র পরিচালক, প্রযোজক…বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী ‘অমর শিল্পী’ কিশোর কুমারের জন্মদিন। নিজের ফেসবুক পোস্টে জনপ্রিয় অভিনেতা-সংগীতশিল্পী কিশোর কুমারের জন্মদিনে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি। সেখানে লিখেছেন – “জিন্দেগী কৈসি হ্যায় পাহেলী হায়, কভি তো হাসায়ে কভি য়ে রুলায়ে ……একদিন সপ্নো কা রাহি, চলা জায়ে সপ্নো সে আগে কাঁহা …”। কিন্তু গানটি আদৌ কিশোর কুমারের গাওয়া নয়, আরেক জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী মান্না দে এই গানটি গেয়েছিলেন।

ফেসবুকে দিলীপ ঘোষ এটা পোস্ট করার সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁকে নিয়ে মস্করা শুরু হয়েছে। কেউ কেউ বলছেন, দিলীপ ঘোষ বাঙালির সেন্টিমেন্ট আঘাত করেছেন। নেটিজেনদের অনেকেই বলছেন, রফি-কিশোর-মান্না বাঙালির গর্ব। কে কোন গান গেয়েছেন সেটা বাঙালি অন্তত বুঝতে ভুল করে না। সেখানে দিলীপ ঘোষ এতবড় ভুলটা করলেন কিভাবে? তাও আবার কিশোর কুমারের জন্মদিনে!!

তবে এর আগেও মোহনবাগান-ইস্টবেঙ্গলকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় এমনই বড়সড় ভুল করেছিলেন দিলীপ। পরে তা নিয়ে শোরগোল পড়তে পোস্টটি সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।