স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: একদিকে কার্নিভাল অন্যদিকে খুন-খারাপি। আম-জনতা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিচালিত সরকারের পরিকল্পিত বিভ্রান্তি ছড়ানোর প্রচেষ্টাকে ধরে ফেলেছে বলে মনে করেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। শুক্রবার রেড রোডে দুর্গাপুজোর ভাষণের কার্নিভাল।

দিলীপের মতে, একদিকে কার্নিভাল, ফেস্টিভ্যাল চলছে। একদিকে আইন শৃঙ্খলার অবনতি হচ্ছে। এ আর নতুন কী। মনে রাখা প্রয়োজন, পুজোর আগেই কলকাতা ঘুরে গিয়েছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ এবং কার্যকরী সভাপতি জগৎ প্রকাশ নাড্ডা।

তাঁর দুজনেই রাজ্যে আইন শৃঙ্খলার কথা বলেছেন এবং প্রশ্ন তুলেছেন। জগৎ প্রকাশ নাড্ডা রাজ্যে ৮০ জন নিহত বিজেপি কর্মীর জন্য মহালয়ার তর্পণ করেছেন। রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস রাজনৈতিক হিংসা ছড়াচ্ছে – বিষয়টি ভোটের ময়দানে প্রতিষ্ঠা করতে চায় বিজেপি।

এছাড়া, যাঁরা খুন হয়েছেন, তাঁদের আত্মার শান্তি জন্য পশ্চিমবঙ্গে বিজেপিকে ক্ষমতায় আসতে হবে। দলীয় কর্মীদের বার্তা দিয়ে গিয়েছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। অমিত বলে গিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় আসার জন্য লড়াই করতে হবে। প্রচুর পরিশ্রম করতে হবে। নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে এনআরসি নিয়ে বক্তব্য রাখার পাশাপাশি একটি অন্তর্দলীও সভায় করেছিলেন অমিত। সেখানে তিনি দলের কার্যকর্তাদের নির্দেশ দেন।

রাজ্যে বিজেপির সদস্যতা অভিযান শেষ হওয়ার ওর দেখা গিয়েছে ৭০ লাখেরও বেশি সদস্য হয়েছে। বর্তমানে তা প্রায় ১ কোটি সদস্য রয়েছে। রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব মনে করে বিজেপি কর্মী খুন হওয়ার ঘটনার পরও এই সদস্য বেড়েছে। সুতরাং, মানুষ আর শাসকদলকে ভয় পাচ্ছে না।