তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: দিলীপ ঘোষ আকাটের মতো কথা বলছেন। ‘জাল ডিগ্রি’ নিয়ে যিনি ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তিনি কি করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীদের জ্ঞান দিচ্ছেন। সোমবার বাঁকুড়ার এনআরসি, সিএএ, এনআরপি সহ লাগাতার মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে এক সভায় যোগ দিতে এসে এভাবেই বিজেপির রাজ্য সভাপতিকে বিঁধলেন সিপিএম কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সুজন চক্রবর্তী।

সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি আরও বলেন, সারা দেশে বিজেপি জবরদস্তি আর স্বৈরাচারি মনোভাব নিয়ে চলছে। কিন্তু কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে ‘মুক্ত চিন্তা’র ক্ষেত্র। তা আর থাকছে না।

‘সিপিএমকে পেটানো উচিৎ এই মনোভাব নিয়েই বিজেপি প্রশ্রয় দিয়ে তৃণমূল সরকার চালু করেছে’ দাবি করে সুজন চক্রবর্তী বলেন, বামপন্থীদের দুর্বল করতেই তারা এই কাজ করেছে। যদিও এখন বিজেপি দাবি করছে, তৃণমূল ওদের পেটাচ্ছে। বামপন্থীরা এই পেটাপেটির রাজনীতির বিরুদ্ধে সুস্থ শান্তিপূর্ণ রাজনীতির পক্ষপাতি বলে তিনি জানান

বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের সম্প্রতি বাঁকুড়া সফরে এসে মন্তব্য সিপিএম-কংগ্রেসের ‘পরকিয়া’ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, উনি তৃণমূলে থেকে যা যা কাণ্ড করতেন, বিজেপিতেও ঠিক তাই তাই করছেন। আমি এবিষয়ে ‘প্রেম সংক্রান্ত’ কোনও মন্তব্য করব না। তবে মানুষের বিরোধী মনোভাব নিয়ে চলেন। এমনকি তৃণমূলের লোকেরাই বিজেপির ঝাণ্ডা হাতে ঘুরছে। এই ঘটনায় প্রমাণিত তৃণমূল-বিজেপির কোনও পার্থক্য নেই বলে তিনি মনে করেন।

জেএনইউ সভাপতি ঐশী ঘোষের উপর আক্রমণের তীব্র নিন্দা করে সুজন চক্রবর্তী বলেন, এই সব সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের আওতায় পড়ে। মুখ বেঁধে ছাত্রী আবাসে আক্রমণ সেকথাই প্রমাণ করে। ঐ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে ‘অপদার্থ’ আখ্যা দিয়ে তাঁর পদত্যাগ দাবি করেন। তিনি বলেন, মানুষ এই দেশ জুড়ে এই ঘটনার প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। একই সঙ্গে ৮ জানুয়ারী সারা দেশে সর্বাত্মক বনধ পালিত হবে বলেও তিনি জানান।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV