গ্রাফিক্স- kolkata24x7

পূর্ব মেদিনীপুর; ফের পুলিশকে হুমকি বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের। এবার একেবারে পিষে মেরে ফেলার হুমকি দিলেন তিনি। আর যা নিয়ে তীব্র বিতর্ক তৈরি হয়েছে।

পূর্ব মেদিনীপুরের মেছেদায় দলের একটি সভায় যোগ দেন দিলীপ ঘোষ। সেখানে যোগ দিয়ে সরাসরি পুলিশকে হুঁশিয়ারি দেন তিনি। মেদিনীপুরের বিজেপি সাংসদের হুঁশিয়ারি, আমি নিকি ৩০২ মার্ডার কেসের আসামি।যদি মার্ডার না করে আমি মার্ডার কেসের আসামি হয়ে যাচ্ছি।তাহলে এবার পুলিশের ঘাড়ের উপর পা তুলে দাঁড়িয়ে পুরো পিষে মেরে ফেলব।সবই আমরা ডায়েরিতে নোট করে রাখছি।

এখানেই শেষ নয়, দিলীপ ঘোষ আরও বলেন, পাঁশকুড়ার পুরপ্রধান আনিসুর রহমান-সহ আমাদের বহু নেতাকে পুলিশ মিথ্যে কেস দিচ্ছে।হুগলিতে তৃণমূল নেতা খুন হচ্ছে, আর তাতে আনিসুরকে ঢুকিয়ে দিচ্ছে।বহু নেতা গাঁজা কেসেও ঢুকিয়ে দিচ্ছে। এভাবে বেশিদিন চলবে না বলেও তিনি হুঁশিয়ারি দেন। তাঁর এহেন মন্তব্যে তীব্র বিতর্ক তৈরি হয়েছে।

দিলীপ ঘোষের এহেন মন্তব্যে তীব্র নিন্দা করেছে তৃণমূল নেতৃত্ব। জেলা তৃণমূল নেতৃত্বের মতে, এই ভাষাতে কথা বলটাই বিজেপির সংস্কৃতি। মানুষকে খুন করে দেব, একে মেরে ফেলব বিজেপি নেতারা হুঁশিয়ারি দিয়ে যাচ্ছে। তবে রামকৃষ্ণ-বিবেকানন্দের বাংলায় তা চলবে না বলে পালটা দাবি তৃণমূলের। দলের এক শীর্ষ নেতার মতে, আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বাংলার মানুষ বিজেপিকে ছুঁড়ে ফেলে দেবে।

পুলিশকে হুঁশিয়ারি দেওয়ার পাশাপাশি দিলীপ ঘোষ আরও বলেন, পার্লামেন্টে তৃণমূলের সাংসদরা এক কোনে চোরের মতো বসে থাকে। মুখ ফোটানোর কোন ওঁদের কোন ক্ষমতা নেই। সব দলই তৃণমূলকে ল্যাঙ মেরেছে। এরা এতই নির্লজ্জ যে ৩৭০ ধারারও বিরোধিতা করেছে।” এ দিন দিলীপবাবু পূর্ব মেদিনীপুরের রামনগর বিধানসভার মীরগোদা গঞ্জ, খেজুরি বিধানসভার নাজিরবাজারে, তমলুকের মেছেদাতেও সভা করেন। সভায় তৃণমূল ও সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে কয়েক হাজার নেতা-কর্মী যোগ দেন।

নবাগতদের হাতে দ পতাকা তুলে দেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।এ দিন তিনি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন, “সামনে বিধানসভা ভোট।আমাদের কর্মীরা খুবই উৎসাহের সহিত কাজ করছে।এ রাজ্যে আমরা ১ কোটি সদস্য করবোই।তবে তৃণমূলকে একুশে ক্ষমতায় আসার জন্য স্বপ্ন দেখতে হবে।বিজেপি ২০২১ এ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়েই সরকার গড়বে।”