নৈহাটি: কালীপুজো উপলক্ষ্যে উদ্বোধন ঘিরে রাজনৈতিক তরজা শুরু হয়েছে অনেক আগে থেকেই। তৃণমূল-বিজেপি মতবিরোধের জলও গড়িয়েছে অনেকদূর। উত্তর চব্বিশ পরগণাতে পুজো উদ্বোধনে এসে সেই বিতর্ককে ফের উস্কে দিলেন পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

নৈহাটিতে কালীপুজোর উদ্বোধন করতে এসে এদিন তিনি বলেন, “আমরা বিজেপি নেতারা যেখানে পুজোর উদ্বোধন করতে গেছি সেখানেই শুনছি তৃণমূল অশান্তি সৃষ্টি করতে চাইছে। পুজো, উৎসব সবই কি সরকার পক্ষের লোকজন করবে? আয়োজকরা যেটা চাইবে, সেটাই হবে। সরকার পক্ষের ইচ্ছাতে সবকিছু হবে না। এখনো মানুষের মনে ভয়ভীতি আছে। অনেকে ইচ্ছা থাকলেও আমরা গেলে বাইরে আসতে ভয় পাচ্ছেন। তবে ধীরে ধীরে সেই ভয় মানুষের কেটে যাবে। আমরা যেখানেই যাচ্ছি, ব্যপক জনসমাগম হচ্ছে। এটা শুধু নৈহাটি বলে নয়, সর্বত্র একই ঘটনা। এটা নিশ্চিত যে বাংলায় আগামীদিনে পরিবর্তন আসবেই। আগামী দিনে বাংলায় বিজেপি ক্ষমতায় আসছে।”

সাংবাদিকদের বিজেপি রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কালী পুজোর রাতে উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটিতে ৪টি বড় কালীপুজোর উদ্বোধন করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। নৈহাটির নিউ স্টার ক্লাবের পুজো পরিচালনা করতেন নৈহাটি পুরসভার তৃণমূল কাউন্সিলর সনৎ দে। ওই পুজো বর্তমানে ওই তৃণমূল কাউন্সিলরের হাত থেকে বেরিয়ে যায়। ওই পুজোর পরিচালনার দ্বায়িত্ব নেয় বিজেপি সমর্থকরা। এই পুজো নিয়ে নৈহাটি শহরে ব্যপক জলঘোলা হয়।

নৈহাটি নিউ স্টার ক্লাবের পুজোর খুঁটি পুজো করেন বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। সেই পুজোর উদ্বোধন করলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এই ক্লাবের পুজো কমিটি থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে সনৎ দে কে। এদিকে নৈহাটি শহরে এবছর বেশ কিছু কালীপুজোর উদ্বোধন করেন সাংসদ অর্জুন সিং, বিজেপির কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী ও রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ চারটি কালীপুজোর উদ্বোধন করেন নৈহাটি শহরে।