নিউজ ডেস্ক, কলকাতা: প্রকাশ্যে জয় শ্রী রাম বলায় ইতিমধ্যেই ১০জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ সেই ঘটনাকে টেনে এনে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তোপ দাগলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷ শুক্রবার বিজেপির রাজ্য দফতরে সাংবাদিক বৈঠকে দিলীপ ঘোষ বলেন জয় শ্রী রাম বলাটাই পশ্চিমবঙ্গে সবচেয়ে বড় অপরাধ৷

এদিন মমতাকে কটাক্ষ করে দিলীপ ঘোষ বলেন এত বাহিনী তৈরি করে মমতা বুঝিয়ে দিয়েছেন যে তিনি ভয় পেয়েছেন৷ কিন্তু  কতজনকে গ্রেফতার করবেন তিনি? রাজ্যে গণতন্ত্রের অন্তর্জলিযাত্রা হয়েছে৷ বিজেপির হাত ধরেই রাজ্যে গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠা হবে৷ যেভাবে জয় শ্রী রাম শুনে আস্ফালন করছেন মমতা, তা তাঁর পরাজিত মানসিকতারই প্রকাশ৷ এসব আচরণ করেও সরকার টিঁকিয়ে রাখতে পারবেন না তিনি৷ এই সরকার বেশিদিন থাকবে না৷

আরও পড়ুন : বড় খবর: অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মীদের উৎসব ভাতা দেবে মমতা সরকার

এদিন বাংলার দুই প্রতিমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানিয়ে রাজ্য বিজেপি সভাপতি বলেন এরপর বাংলা আরও গুরুত্ব পাবে৷ এবার ২জন প্রতিমন্ত্রী পেয়েছে৷ পরে সেই সংখ্যা আরও বাড়বে৷ তিনি নিজে মন্ত্রীত্ব চান না? এই প্রশ্নের উত্তরে দিলীপ বলেন অমিত শাহ নিজে বাংলার মানুষকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানিয়েছেন৷ সংগঠনের কাজেই বেশি স্বচ্ছন্দ তিনি, মন্ত্রীত্ব নিয়ে কোনও দাবি নেই বলে সাফ জানিয়ে দেন দিলীপ ঘোষ৷

এদিন তিনি জানান, আরএসএসের কোনও তুলনা নেই৷ এর কোনও বিকল্প হয়না৷ তবে একটি বিষয়ে কিছুটা বিতর্ক উসকে দেন দিলীপ৷ তিনি বলেন এখন যাদের বিরোধিতা করছি, তারাও আসতে পারে বিজেপিতে৷  বিজেপির দরজা খোলা সবার জন্য৷ তবে যারা অন্য দল থেকে আসছেন, তাদের নিয়ে দুশ্চিন্তা আছে৷ দেখা যাক দল কীভাবে তাদের ব্যবহার করে৷ দল বাড়ানোর স্বার্থে যোগদান তো করাতেই হবে৷ এটাই রাজনীতি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।