স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: পুলিশ কমিশনার লাঠি হাতে ছুটছেন। বন্দুক উঁচিয়ে রয়েছেন – একটি পাড়ার ঝামেলা মেটাতে কমিশনারকে এই কাজ করতে হচ্ছে। কটাক্ষ করলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

সোমবার সাংবাদিক সম্মেলনে দিলীপ বলেন, এদের (পুলিশের) যোগ্যতা হল যারা তাঁবেদার। ইউনিফর্ম পরা পুলিশ অফিসার মুখ্যমন্ত্রীর পায়ে হাত দিয়ের প্রণাম করছেন। ভালো জায়গায় পোস্টিং নেওয়া এবং প্রোমোশনের জন্য পা ধরতে হচ্ছে। আর যারা পা ধরে বোরো হয়েছেন, তাদের থেকে ভালো কাজ আশা করা যায় নাকি।

বারাকপুর পুলিশ বিজেপি নেতা-কর্মী এবং সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিদের ব্যাপক মারধর করেছে বলে অভিযোগ। এলাকার বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের সমর্থনে তিনি বলেন, এলাকার পার্টি অফিস দখল হয়ে যাচ্ছে। অর্জুন কী দাঁড়িয়ে থাকবে। তিনি সাংসদ। নিজের অধিকার রক্ষা করেছেন।

রাজ্যের মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেছেন, অর্জুন সিং নাটক করেছেন। নিজের লোকেদের দিয়ে মাথা ফাটিয়েছে। ঝাড়খণ্ড বিহার থেকে গুণ্ডা নিয়ে এসে ঝামেলা করছেন। দিলীপের জবাব, যতদিন তৃণমূলে ছিল, অর্জুন খুব ভালো ছিল। এখন খারাপ হয়ে গেছে। “জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকেই আমরা জায়গায় জায়গায় একটি রকম ভাবে স্বাগত জানাতে চাই। আমরা তৈরি আছি।” – বলেন দিলীপ।

ওনার সমর্থকরাই পাথর ছুঁড়িল। পুলিশ বারণ করেছিল, থামানোর চেষ্টা করেছিল। সেইসময় ওনারই কোনও সমর্থকদের ছোঁড়া পাথর লেগেছে অর্জুন সিংয়ের মাথায়। পুলিশ তো লাঠি মারলে গায়ে মারে, মাথায় মারে না। সোমবার বারাকপুরের ঘটনা নিয়ে এমনটাই জানালেন রাজ্য পুলিশের এডিজি জ্ঞানবন্ত সিং।

জ্ঞানবন্তের বক্তব্য শুনে দিলীপ ঘোষ বলেছেন, ওই জায়গায় জ্ঞানবন্ত ছিলেন না। আর পাড়ার গণ্ডগোল থামায়ে কমিশনারকে বন্দুক বার করতে হচ্ছে।