স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: কলকাতা এবং বিধাননগরের প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের উপর থেকে রক্ষাকবজ উঠে গিয়েছে আদালতের নির্দেশে। কলকাতা হাইকোর্ট বলেছে, তদন্তের স্বার্থে সিবিআই রাজীব কুমারকে যেকোন সময় গ্রেফতার করতে পারেন। তার পর থেকেই রাজীব কুমার কোথায় তা জানা যাচ্ছে না। রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন, পি চিদাম্বরমও পালিয়ে বাঁচতে পারেনি রাজীব কুমারও পারবেন না।

এদিন দিলীপ বলেন, “চিদাম্বরাম কেও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। দেশের সঙ্গে যারা বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন, সাধারণ মানুষের বিশ্বাস ভঙ্গ করেছেন, তাঁরা আজ সিবিআই এর ভয়ে ভীত। সিবিআই যদি মনে করে কাউকে গ্রেফতার করবে, সে মাটির তলায় লুকোতে পারবে না। চিদাম্বরমকে মতো বড় ও ভারী নেতাকে গ্রেফতার করে দেখিয়ে দিয়েছে।”

দিলীপ বলেছেন, “পালিয়ে কেউ বাঁচতে পারবে না সে টা আইপিএস অফিসার হিসেবে রাজীব কুমার বোঝেন। তদন্তে সহযোগিতা করা উচিত। এতবড় কেলেঙ্কারি হয়েছে, মানুষ যাতে ন্যায় পায়।”

দিলীপকে প্রশ্ন করা হয়, শোনা যাচ্ছে , রাজীব কুমার কলকাতাতেই আছেন। আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলছেন। সোমবার সুপ্রিম কোর্টে যেতে পারেন। দিলীপের জবাব, উনি যেখানে খুশি সেখানে যেতে পারেন। চিদাম্বরমও সুপ্রিম কোর্টে গিয়েছিল। ওনার যাওয়ারও অধিকার আছে।

এদিকে রাজীব কুমার কোথায়তা নিয়ে ধন্দে সিবিআই। রাজীবের খোঁজে বাড়তি নজর রাখা হয়েছে বিমানবন্দরেও। তিনি সুপ্রিম কোর্টে সোমবারই আবেদন করতে পারেন এই কথা মনে করে সিবিআই অফিসার রা নজরদারি চালাচ্ছেন।

গতকাল কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের গ্রেফতারির ওপর থেকে কলকাতা হাইকোর্ট রক্ষা কবচ তুলে নেওয়ায় পরই, তাঁর বাড়িতে পৌঁছে যায় সিবিআই। শনিবার সকাল দশটা নাগাদ তাঁকে সিজিও কমপ্লেক্সের সিবিআই দফতরে হাজির হতে নির্দেশ দিয়ে নোটিশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। যদিও যে সময় নোটিস দেওয়া হয়েছে, সে সময় ৩৪, পার্ক স্ট্রিটের সরকারি আবাসনে তিনি উপস্থিত ছিলেন না রাজীব।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।