স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: শ্রমিকরা রেললাইনে শুয়ে থাকলে তাঁর দায় কেন্দ্রের নয়। ঔরঙ্গাবাদের দুর্ঘটনায় পরিযায়ী শ্রমিকদের মৃত্যু প্রসঙ্গে এমনই মন্তব্য করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর সাফ কথা, পরিযায়ী শ্রমিকদের কোনও দায়ই কেন্দ্রের নয়। দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্যে চরম বিতর্ক সৃষ্টি হয়ে রাজনৈতিক মহলে। শুক্রবার ভোরে মহারাষ্ট্রের ঔরঙ্গাবাদের কাছে রেল লাইনে বিশ্রাম নেওয়ার সময় মালগাড়ির ধাক্কায় মৃত্যু হয়েছে ১৫ জন প্রবাসী শ্রমিকের।

মহারাষ্ট্র থেকে রেল লাইন ধরে হেঁটে মধ্যপ্রদেশে যাচ্ছিলেন তাঁরা। পথে ক্লান্ত হয়ে পড়লে রেল লাইনেই ঘুমিয়ে পড়েন ওই শ্রমিকরা। তখনই মালগাড়ির ধাক্কায় মৃত্যু হয় তাঁদের। শুক্রবার এই নিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘শ্রমিকরা যদি রেল লাইনে শুয়ে থাকেন তাহলে কি তা কেন্দ্রের দোষ?’ এই ঘটনায় রাজ্যকেই দায়ী করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি।

তিনি বলেন, শ্রমিকদের এই পরিণতি জন্য রাজ্যই দায়ী। রাজ্য শ্রমিকদের ঘরে ফেরাতে সঠিক পদক্ষেপ নিচ্ছে না বলেই শ্রমিকদের এভাবে ঘরে ফিরতে হচ্ছে। সেই কারণেই দুর্ঘটনা ঘটছে। কিন্তু মধ্যপ্রদেশে ক্ষমতায় রয়েছে বিজেপি সরকার, তাহলে কি এই দুর্ঘটনার দায় রাজ্যের উপর চাপিয়ে শিবরাজ সিং চৌহান সরকারকেই ব্যর্থ বললেন সাংসদ দিলীপ ঘোষ? রাজনৈতিক মহলে এই প্রশ্নও উঠেছে।

মধ্যপ্রদেশ সরকার মৃত ১৫ জনের প্রত্যেকের পরিবারকে ৫ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে। সেইসঙ্গে মৃতদের পরিবারের সদস্যদের পাশে থাকার আশ্বাস, তাঁদের সবরকম সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। পরিযায়ী শ্রমিকদের মৃত্যুর ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

ইতিমধ্যেই এই ঘটনা কীভাবে ঘটল, চালকের ভূমিকা কী, তা নিয়ে রেলমন্ত্রী পীযুষ গোয়েলকে যথাযথ তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, “এতগুলো প্রাণ একসঙ্গে শেষ হয়ে গেল। আমরা মর্মাহত। রেলমন্ত্রী গোটা বিষয়টির ওপর নজর রেখেছেন। প্রয়োজনীয় সমস্ত রকম বিষয়ে সাহায্য করা হবে।” নরেন্দ্র মোদী এই দুর্ঘটনায় শোকপ্রকাশ করলেও তাঁর দলের নেতার এমন মন্তব্য অনেককেই অবাক করেছে।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প