ফাইল ছবি

কলকাতাঃ  বাংলায় এবার পাপড়ি মেলতে চলেছে পদ্ম৷ বিভিন্ন সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের বুথ ফেরৎ সমীক্ষায় ইঙ্গিত এমনটাই৷ পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি পেতে পারে ১৬ থেকে ২৩টি আসন৷

৪২-এ ৪২-এর ডাক দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী৷ কিন্তু বুথ ফেরৎ সমীক্ষার প্রবণতা সত্যি হলে সে গুড়ে বালি৷ ৪২ তো দূর, তিরিশের ঘরেও পৌঁছতে পারবে না জোড়াফুল শিবির৷ ২০১৪-র তুলনায় প্রায় ৬ থেকে ১০টি আসন কমতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেসের৷ আর এই সমীক্ষা প্রকাশ্যে আসতেই গোটা দেশজুড়ে কার্যত অকাল উৎসবে মেতেছেন বিজেপি কর্মীরা। বাংলার ক্ষেত্রেও ছবিটা একই রকমে। গত একমাস ধরে মাটি কামড়ে পড়েছিলেন বিজেপি কর্মীরা। যেভাবেই হোক অমিত শাহের ২৩-এর স্বপ্নপূরণ করতে হবে। কিন্তু সমীক্ষা বাংলার যে ফল পুর্বাভাসে দেখাচ্ছে তাতে কার্যত উজ্জিবিত বাংলার বিজেপি কর্মী থেকে নেতৃত্ব।

পড়ুন আরও- বুথ ফেরৎ সমীক্ষা: ঘাসফুল পিষে বাংলায় পদ্ম ফোটার অপেক্ষা

এই প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বাংলা এক সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, এটাই হওয়ারই ছিল। বিজেপির প্রতি সাধারণ মানুষের এই চোরা সমর্থন মোদীজি-অমিতজি আগেই বুঝতে পেরেছিলেন। তাই গত দু’মাসে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে দিয়ে ৮০টি জনসভার আয়োজন করেছি। একজন প্রধানমন্ত্রী লোকসভা ভোটের প্রচারে ১৮টি জনসভা করেছেন, এটা সর্বকালীন রেকর্ড। বাংলার মানুষের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে দিলীপবাবুর বার্তা, কথা দিচ্ছি, ক্ষমতায় এলে কুশাসনের অবসান ঘটিয়ে রাজ্যে সুশাসন নিশ্চিত করব। আত্মবিশ্বাসী বিজেপি সভাপতি আরও বলেন, ২৩ মে সব সমীক্ষাকে উল্টে দিয়ে আমরা রাজ্যে অর্ধেকের বেশি আসন জিতব।

উল্লেখ্য, এবার সাত দফায় ভোট হয়েছে৷ ১১ই এপ্রিল থেকে ১৯ শে মে পর্যন্ত ভোটের দিনগুলিতে এই সমীক্ষা করা হয়েছে বলে দাবি সংবাদ মাধ্যমগুলির৷ সেখানে জানানো হয়েছে, দেশের প্রায় এক লক্ষ মানুষের উপর এই সমীক্ষা করা হয়েছে৷ আর সমীক্ষার যা পূর্বাভাস তাতে বাংলায় এক অংক থেকে এক ধাক্কায় দু অংকে পৌঁছে যাচ্ছে বিজেপি। এই পূর্বাভাস সত্যি হলে অবশ্যই মমতাকে ধাক্কা দিয়ে বাংলায় নজিরবিহীন উত্থান বলেই মত রাজনৈতিকমহলের। যদিও বুথ ফেরত এমন সমীক্ষা সম্পূর্ণ গসিপ বলে উড়িয়ে দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর দাবি, আগামী ২৩-শে মে সমস্ত কিছু পরিস্কার হয়ে যাবে। তবে তাঁর মতে, মোদী আর ক্ষমতায় ফিরছে না।