কলকাতা:  যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে হেনস্তার শিকার হতে হয়েছে কেন্দ্রীয়মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে। অবস্থা এতটাই খারাপ জায়গায় পৌঁছয় যে ঘটনাস্থলে যান খোদ রাজ্যপাল নিজে। প্রায় কয়েক ঘন্টা পর কার্যত আন্দোলনকারীদের চোখে ধুলো দিয়ে বাবুল সুপ্রিয়কে সঙ্গে নিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়েন। এই ঘটনার ২৪ ঘন্টা পর নজিরবিহীন হুঁশিয়ারি বিজেপি সাংসদ তথা রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের।

তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, সার্জিকাল স্ট্রাইক করে যাদবপুর কমিউনিস্টদের ঘাঁটি ভেঙে গুঁড়িয়ে দেব। খোদ দেশের মধ্যে থেকে রাষ্ট্রদোহিতা চাই না বলে মন্তব্য দিলীপ ঘোষের। তাঁর মন্তব্য, এমন ছাত্র চাই না। এটা গণতন্ত্র! এদের হাতে দেশকে সঁপে দেব। চিন্তা করতে কষ্ট হচ্ছে। কয়েকটা দুর্বত্তকে সমর্থন করছেন দুর্বুদ্ধিজীবীরা, দাবি বিজেপির রাজ্য সভাপতির।

শুক্রবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, হাত কীভাবে ভেঙে দিতে হয় আমরা জানি। আর বাবুল প্রসঙ্গে দিলীপ বলেন, তিনি শুধু শিল্পী কিংবা গায়ক নন, উনি বাংলায় গৌরব। অগ্নিমিত্রা ভারত বিখ্যাত একজন ফ্যাশন ডিজাইনার। এমন ঘটনা ঘটলে আগামিদিনে ভদ্রলোকেরা আর রাজনীতিতে আসবে না বলে মন্তব্য করেন দিলীপ ঘোষ। এরপরেই মেদিনীপুরের এই সাংসদ হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, কীভাবে এদের ঠান্ডা করতে হয় জানা আছে। হাত কীভাবে ভেঙে দিতে হয়, আমরা জানি। আজ নয়তো কাল হবেই। আমি দিলীপ ঘোষ বলছি, এ ক্ষমতা আমাদের আছে।