কলকাতা: পদত্যাগের জল্পনা ওড়ালেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সোমবার সাংবাদিক বৈঠক করে তাঁর পদত্যাগের জল্পনায় জল ঢাললেন দিলীপ ঘোষ নিজেই। তিনি বলেন, ‘পদত্যাগ করার হলে এই চেয়ারে বসে থাকতাম না। দিলীপ ঘোষ একাই পারবে এ রাজ্যের পরিবর্তন ঘটাতে। যারা বাড়িতে বসে আছেন বসে থাকুন। দেখে নেবেন কি হয়।’

রাজ্য বিজেপিতে দ্বন্দ্ব রয়েছে বলে দেখানোর কৌশল নিয়েছে মিডিয়ারই একাংশ, এমনই অভিযোগ দিলীপ ঘোষের। যদিও সেই বিতর্কেরও এদিন অবসান ঘটিয়েছেন দিলীপ ঘোষ।

সোমাবার সাংবাদিক বৈঠক করে তিনি বলেন, ‘বিজেপির মধ্যে কোনও বিভেদ নেই। মিডিয়া এটা করানোর চেষ্টা করছে। বিজেপি আছে বিজেপিতে। ভারতীয় জনতা পার্টিতে এসব হয় না। আসলে বড় কোনও উদ্দেশ্য আছে।’

এরই পাশাপাশি তাঁর পদত্যাগের বিষয়টি নিয়েও গুজব ছড়ানো হয়েছে বলে পাল্টা অভিযোগ এনছেন দিলীপ ঘোষ। এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘পদত্যাগ করার হলে এই চেয়ারে বসে থাকতাম না। দিলীপ ঘোষ একাই পারবে বাংলার পরিবর্তন ঘটাতে। যারা বাড়িতে বসে আছেন, বসে থাকুন। দেখে নেবেন কী হয়। বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী হলে মিষ্টি খেয়ে যাবেন।’

একইসঙ্গে এদিনও স্বভাবসিদ্ধ ঢঙেই রাজ্য সরকারকেও আক্রমণ করেছেন মেদিনীপুরের বিজেপি সাংসদ। তিনি বলেন, ‘বাংলায় ঠাকুরের উদ্বোধন দেখা যায়। শিল্পের উদ্বোধন হয় না।’

বিধানসভা ভোটের আগে রাজ্যে বিজেপির সংগঠন ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। আগামী ৫ অগাস্ট থেকে নতুন সদস্য সংগ্রহ অভিযান শুরু করবে বিজেপি। তিন কোটি সদস্যপদ সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে বলে জানান দিলীপ ঘোষ।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও