রায়গঞ্জ: আবারও বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের নিশানায় রাজ্য সরকার। করোনা মোকাবিলার নামে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজনীতি করছেন বলে তোপ দেগেছেন দিলীপ ঘোষ। করোনা রুখতে রাজ্য সরকার পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে বলেও মনে করেন মেদিনীপুরের বিজেপি সাংসদ।

করোনা ইস্যুতে আবারও সুর চড়ালেন দিলীপ ঘোষ। মঙ্গলবার উত্তর দিনাজপুরে সাংবাদিক সম্মেলনে রাজ্যের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন বিজেপি সভাপতি। তাঁর কথায়, ‘একাধিক রাজ্যে আগে বেশি সংক্রমণ থাকলেও সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনার মাধ্যমে সেই রাজ্যগুলিতে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছে সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারগুলি। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গ সরকার তা করত পারেনি। করোনার সংক্রমণ বর্তমানে বাংলায় নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়ার পরিস্থিতি নিয়েছে।’

এরই পাশাপাশি এদিন আবারও লকডাউন নিয়ে রাজ্যের সমালোচনায় সরব হয়েছেন দিলীপ ঘোষ। করোনা মোকাবিলায় রাজ্যে পরিকল্পনা করে লকডাউন ঘোষণা করা হয়নি বলে দাবি বিজেপি রাজ্য সভাপতির। তাঁর আরও অভিযোগ, রাজ্যের সর্বত্র একইরকম কড়াকড়ি করে লকডাউন করা হয়নি। কোথাও লকডাউন কড়া করলেও অন্যত্র শিথিলতা দেখানো হয়েছে।

রাজ্য সরকার লকডজাউন নিয়ে রাজনীতি করছে বলে অভিযোগ তুলেছেন মেদিনীপুরের বিজেপি সাংসদ। তাঁর কথায়, ‘বিজেপিকে আটকাতে এখন লকডাউন করা হচ্ছে। সাধারণ মানুষের মধ্যে বিক্ষোভ দানা বেঁধেছে। সেটা বুঝতে পেরেই লকডাউন করছে রাজ্য সরকার। বিষয়টি নিয়ে রাজনীতি করা হচ্ছে।’

করোনা নিয়ে শুরু থেকেই রাজ্য সরকারের পদক্ষেপের সমালোচনা করতে দেখা গিয়েছে বিজেপিকে। প্রথম দিকে রাজ্য সরকার করোনার প্রকৃত সংক্রমণ সম্পর্কিত তথ্য চেপে যায় বলেও অভিযোগ তোলে গেরুয়া শিবির। যদিও বিজেপির এই অভিযোগে কখনই আমল দেয়নি রাজ্যের শাসকদল। উল্টে রাজনৈতিক ফায়দা নিতেই বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলছে বলে পাল্টা অভিযোগ তোলে শাসক শিবির।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও