কলকাতা: অনুব্রত মণ্ডলের মহাযজ্ঞকে এবার কটাক্ষ বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের। ‘বছরভর চুরির পর এখন ভগবানের নাম নিচ্ছে’, বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের ‘মহাবিজয় যজ্ঞ’-কে এভাবেই বিঁধলেন দিলীপ ঘোষ। আসন্ন বিধানসভা ভোটে দলের সাফল্য কামনায় বুধবার বীরভূমের কঙ্কালীতলা মন্দিরে যজ্ঞের আয়োজন করেন অনুব্রত মণ্ডল।

বিধানসভা ভোটের ঢাকে কাঠি পড়েছে। রাজ্যজুড়ে নির্বাচন প্রচার তুঙ্গে। জনসমর্থন আরও বাড়িযে নেওয়ার চেষ্টায় সব দল। একদিকে ‘উন্নয়ন’-কে হাতিয়ার করে ক্ষমতায় টিকে থাকতে মরিয়া শাসকদল তৃণমূল। অন্যদিকে, রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে একাধিক দুর্নীতির অভিযোগ এনে বাংলা দখলে মরিয়া গেরুয়া শিবির। ভোট ময়দানে রয়েছে বাম-কংগ্রেসও। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে এবার জোট করে লড়াইয়ের মযদানে দুই দল।

একুশের বিধানসভা ভোটে ফের বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিযে ক্ষমতায় ফিরবে তৃণমূল। আশাবাদী বীরভূম জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। বুধবার বীরভূমের কঙ্কালীতলা মন্দিরে ‘মহাবিজয় যজ্ঞ’ করেছেন অনুব্রত।

যজ্ঞে ব্যবহৃত হয়েছে ১ কুইন্টাল ১১ কেজি বেল কাঠ, ৩ টিন ঘি। গতকালের যজ্ঞে যোগ দেন বীরভূমের সাংসদ অসিত মাল, বিধায়ক চন্দ্রনাথ সিনহা সহ তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা। ১২ জন পুরোহিত এই যজ্ঞানুষ্ঠানের দায়িত্বে ছিলেন। নিজে দাঁড়িয়ে থেকে এই যজ্ঞ করেছেন অনুব্রত মণ্ডল।

যজ্ঞ শেষে ছিল নরনারায়ণ সেবার ব্যবস্থা। সরাসরি অবশ্য যজ্ঞের কারণ বলেননি অনুব্রত মণ্ডল। স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে হেঁয়ালির ছলেই তিনি বলছিলেন, ‘‘আগেকার দিনে রাজা-মহারাজারা যুদ্ধে যাওয়ার আগে মহাযজ্ঞ করতেন। ভেবে নিন, এটাও সেই একই রকম যজ্ঞ!’’

তবে অনুব্রত মণ্ডলের ‘মহাবিজয় যজ্ঞ’-কে কটাক্ষ করেছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর কথায়, ‘বছরভর চুরির পর এখন ভগবানের নাম নিচ্ছে’। আসন্ন বিধানসভা ভোটে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিযে ক্ষমতায় আসবে বিজেপি, এমনই দাবি দিলীপ ঘোষের।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।