খড়্গপুর: খড়্গপুর সদরে রয়েছেন দিলীপ ঘোষ। তিনি জানিয়েছেন, সেখান থেকেই সব নজর রাখছেন বলে তিনি জানিয়েছেন। তিনি জানান, যদি কেউ গণ্ডগোল করে তবে তাঁদের বিরুদ্ধে লড়াই করা হবে। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন, শক্তি প্রয়োগের প্রয়োজন পড়লে তিনি প্রস্তুত আছেন।

খড়্গপুরের তৃণমূল প্রার্থী প্রদীপ সরকার জানিয়েছেন ,আইনত দিলীপ ঘোষ খড়্গপুরে থাকতে পারেন না। তিনি জয়ের বেশ আশাবাদী সে কথাও জানিয়েছেন।

ইতিমধ্যে ১ ঘণ্টার ভোটপর্ব উত্তীর্ন হয়েছে। কালিয়াগঞ্জ, খড়গপুর ছাড়াও করিমপুরে চলছে এই ভোটগ্রহণ। এরই মধ্যে করিমপুরে বিজেপি প্রার্থী জয় প্রকাশ মজুমদারকে ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে বাধাদানের অভিযোগ উঠেছে। থানাপাড়ায় বিজেপি এজেন্টকে তুলে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে খড়্গপুর সদরে ভোটকেন্দ্রের উলটো দিকে আয়না লাগিয়ে নজরদারি চালানোর অভিযোগ উঠেছে। প্রায় সাড়ে সাত লক্ষের কাছাকাছি ভোটার আজ নিজেদের অধিকার প্রয়োগ করবেন।

আরও পড়ুন – উপনির্বাচন LIVE: সকাল থেকেই অভিযোগ, পালটা অভিযোগে ধুন্ধুমার

এই উপনির্বাচন উপলক্ষে তিন কেন্দ্রের প্রতিটি আসনে লড়ছেন তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিজেপি। খড়গপুর সদরে তৃণমূলের হয়ে দাঁড়িয়েছেন পুরপ্রধান প্রদীপ সরকার। করিমপুরে জোড়াফুলের প্রার্থী বিমলেন্দু সিংহ রায় এবং কালিয়াগঞ্জে তপন দেব সিংহ। অন্যদিকে করিমপুরে পদ্মশিবিরে প্রার্থী জয়প্রকাশ মজুমদার। এছাড়াও খরগপুর সদরে প্রেমচাদ ঝা এবং কালিয়াগঞ্জে কমলচন্দ্র সরকার বিজেপির প্রার্থী হয়েছেন।

এই তিন কেন্দ্রে এবারে উপনির্বাচনে বেশ কয়েকটি বিষয় প্রধান হতে চলেছেন বলে মনে করছেন অনেকে। প্রায় ৪০ শতাংশ সংখ্যালঘু ভোটার রয়েছে করিমপুরে। এছাড়াও খড়গপুরে অবাঙ্গালি ভোটব্যাঙ্কের বিষয়টি সব দলের মাথাতে থাকবে। ২৮ নভেম্বর ফল প্রকাশ পাবে এই নির্বাচনের। এখন দেখার নির্বাচনের পরে এই তিন কেন্দ্রের চিত্র কিরূপ দাঁড়ায়। কোন দলের হাতে যায় ব্যাটন।