মেদিনীপুর:  আজ মঙ্গলবার রাসপঞ্চক। আর সেই উপলক্ষে এক মাস ব্রত করে সমুদ্র স্নানে মেতে উঠলেন কয়েক হাজার ভক্ত। এদিন রাসপূর্ণিমা। আর পবিত্র এই পূর্ণিমা উপলক্ষে দিঘা ও তার আশেপাশের মানুষরা ভগবান শ্রীকৃষ্ণ-রাধাকে পাওয়ার জন্য যে ব্রত রাখেন একমাস ধরে। রাসপঞ্চক তিথিতে সেই ব্রতের শেষ হয়। আর তার শেষ উপলক্ষে বিশেষ শোভা যাত্রা করে সমুদ্রে আসেন লক্ষাধিক মানুষ। সমুদ্রে খোল করতাল সহ নৃত্য সহযোগে আনন্দে মেতে উঠেন তাঁরা। এবারও তার অন্যথা হয়নি।

এদিন সকাল থেকে দিঘা এবং এলাকা সংলগ্ন মানুষেরা সমুদ্রে জড়ো হন। সমুদ্রে পূজা-অর্চনা করার পর সারেন সমুদ্র স্নান। কয়েক হাজার ভক্ত ভোররাত থেকে জামায়েত হন সমুদ্রে।

প্রসঙ্গত, গত কয়েকদিন আগেই ঘন্টায় ১৩৫ কিমি বেগে বাংলার উপর দিয়ে বয়ে যায় সাইক্লোন বুলবুল। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় উপকূল এলাকা। পূর্ব মেদিনীপুরের একাধিক জায়গায় গাছ পড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়। এই অবস্থায় সমুদ্রে নামার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন। সাইক্লোন বাংলাদেশের দিকে চলে যাওয়ার পরেও সমুদ্রে নামার উপর ছিল নিষেধাজ্ঞা।

বুলবুলের নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার পর রবিবার দু’পর্যটকের মৃত্যুর পর দিঘার পুলিশ দুদিন সমুদ্রে নামার নিষেধাজ্ঞা জারি করে সোমবার পর্যন্ত। গতকাল ১১ এবং আজ ১২ তারিখ, অর্থাৎ এই দু’দিন সেই নিষেধাজ্ঞা থাকার কথা,তা সত্ত্বেও ভোর রাত থেকে এভাবে সমুদ্র স্নান করায় পুলিশের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠল।