দিঘাঃ বাঙালিরা একটু খাদ্য রসিক। রকমারি পদের সঙ্গে একটুকরো ইলিশ পেলে বেজায় খুশি। কিন্তু ইচ্ছা থাকলেও উপায় নেই। কারন সমুদ্রের রুপালি ফসল ইলিশের দেখা নেই। তাই চিন্তায় যেমন মৎস্যজীবীরা তেমনই চিন্তিত সাধারন মানুষ।

ইলিশ না পাওয়া গেলেও অন্যান্য সামুদ্রিক মাছ ধরা পড়ল মোহনায়। খরা কাটিয়ে অবশেষে সামুদ্রিক মাছের প্রাচুর্যতা দিঘা মোহনায়। সোমবার দিঘা মোহনার পাইকারি মাছের বাজারে উঠল ৮০০ টন সামুদ্রিক মাছ। তবে অধরা রুপলি শস্য ইলিশ। ১৫ জুন থেকে শুরু হয়েছিল সমুদ্রে মাছ ধরার মরশুম। কিন্তু প্রথম ট্রিপের পর থেকেই দুর্যোগের কারণে মাছ ধরতে সমুদ্রে যেতে পেরেছিলেন না মৎস্যজীবীরা।

আকাল তৈরি হয়েছিল সামুদ্রিক মাছের। ৫ দিন আগে দুর্যোগ ভয় কাটিয়ে সমুদ্রে পাড়ি দিয়েছিলেন মৎস্যজীবীরা। শনিবার মাছ ধরে মাঝ সমুদ্র থেকে ফিরেছে ৪০০ লঞ্চ-ট্রলার। আর তাতেই উঠেছে এই মাছ। তবে ইলিশ না থাকায় হতাশ মৎস্যজীবীরা। বৃষ্টি এবং পুবালি বাতাস না থাকায় ইলিশ সঙ্কট বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

তবে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে ফের সমুদ্রে মাছ ধরতে যাবেন মৎস্যজীবীরা। সেই সময় ইলিশ ধরা পড়বে বলেই মনে করছেন মৎস্যজীবীরা। তবে সেজন্যে অনুকূল পরিবেশের প্রয়োজন রয়েছে বলে জানাচ্ছেন মৎস্য বিজ্ঞানীরা। তাঁদের মতে, সেভাবে বৃষ্টি না হলে ইলিশ ডিম পারতে নোনা জল থেকে মিষ্টি জলে প্রবেশ করবে না। ফলে কতটা ইলিশ আদৌও মৎস্যজীবীদের জালে পড়বে তা নিয়ে আশঙ্কাতে বিজ্ঞানীরা। আর এমন পরিস্থিতি চলতে থাকলে এই মরশুমে ইলিশ বাঙালির পাতে পড়বে কিনা তা নিয়েও যথেষ্ট সন্দেহে বিজ্ঞানী থেকে মৎস্যজীবীরা।