দীঘা : শনিবার সকালে নিউ দীঘা পর্যটন কেন্দ্রের ঝাউবন থেকে উদ্ধার হওয়া তরুনীর পরিচয় পাওয়া গেল। পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে মৃত যুবতীর নাম মাম্পি দোলুই (২০)।

পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুর থানার উত্তর ধানখাল গ্রামে বাড়ী তাঁর। রবিবার সন্ধে নাগাদ তাঁর পরিবারের লোকেরা এসে মৃতদেহটিকে শনাক্ত করেছে বলে পুলিশ সূত্রে খবর।
শনিবার সকালে নিউ দীঘার মাইতি ঘাট সংলগ্ন ঝাউবনের ভেতর গলায় ওড়নার ফাঁস লাগানো অবস্থায় এক যুবতীর মৃতদেহ উদ্ধার করে দীঘা থানার পুলিশ। মেয়েটির পোষাক অর্ধনগ্ন অবস্থায় ছিল। মেয়েটির মৃত্যুর আগে ধর্ষণের কোনও লক্ষণ ধরা পড়েনি। কিন্তু অজ্ঞাত পরিচয় যুবতীর কোনও পরিচয় পুলিশ উদ্ধার করতে পারেনি। এর মধ্যেই মৃতদেহটিকে ময়না তদন্তের জন্য কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে পাঠানোর পাশাপাশি দীঘার বিভিন্ন হোটেলে ওই মেয়েটি উঠেছিল কিনা তার সন্ধান শুরু করে পুলিশ।
বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় ঘটনাটি জানতে পেরে দাসপুর থেকে দীঘা থানায় আসেন সুনীল দোলই ও তাঁর মেয়ে পূজা। তাঁরা জানান উদ্ধার হওয়া মৃতদেহের পোষাক ও চেহারার ছবির সঙ্গে তাঁদের ছোট মেয়ে মাম্পির অনেক মিল দেখতে পেয়েছেন। মাম্পি গত ৮ আগষ্ট থেকে নিখোঁজ রয়েছে। এরপরেই তাঁদের কাঁথি হাসপাতালের মর্গে নিয়ে যাওয়া হলে তাঁরা মৃতদেহটিকে শনাক্ত করেন।