স্টাফ রিপোর্টার, দিঘা: সদ্য শেষ হয়েছে পুজো। কিন্তু পুজোর আমেজ এখনও কাটেনি বাঙালির মন থেকে। তাইতো পুজোর বাকি ছুটির দিন গুলো পরিবার পরিজনদের সঙ্গে জমিয়ে কাটাতে অনেকেই পাড়ি দিয়েছেন সমুদ্র সৈকতে। যারফলে বাংলার বিভিন্ন সৈকতের পাশাপাশি মানুষ প্রচুর ভিড় জমিয়েছেন দিঘাতেও।

ফলে একে টানা পুজোর ছুটি চলছে তাঁর উপর আজ আবার রবিবার হওয়ায় দিঘায় উপচে পড়ছে পর্যটকদের ভিড়। আর সেই ভিড়ের মধ্যে পুলিশের নজর এড়িয়ে উত্তাল সমুদ্রে স্নান করতে নেমেছিলেন এক পর্যটক। জলের স্রোত বেশি থাকায় স্নান করতে করতে তলিয়ে যাচ্ছিলেন ওই পর্যটক। তখনই নুলিয়াদের চোখে পড়ে এক পর্যটকের ভেসে যাওয়ার দৃশ্য। তৎক্ষণাৎ জলে নেমে ওই পর্যটকের প্রান বাঁচাল দিঘার সমুদ্র সৈকতে কর্তব্যরত এক নুলিয়া। এদিকে পর্যটকের প্রান বাঁচানোয় দিঘার সৈকতে উপস্থিত সকল পর্যটক ওই নুলিয়ার সাহসিকতায় বাহবা দিয়েছে।

দিঘা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে ,সাতবন্ধু মিলে গতকালই দীঘায় বেড়াতে আসেন কলকাতার টালীগঞ্জের বাসিন্দা রঞ্জিত গুপ্তা নামের ওই ব্যক্তি। দিঘা পুলিশ আরও জানিয়েছে, রবিবার বেলার দিকে ১২’টা নাগাদ নিউ দিঘার ক্ষনিকা ঘাটে মদ্যপ অবস্থায় স্নান করতে নামেন ওই ব্যাক্তি। আর তখনই আচমকা প্রবল ঢেউয়ে রঞ্জিত নামের ওই ব্যক্তিকে ভেসে যেতে দেখেন ক্ষনিকা ঘাটে কর্মরত ওই নুলিয়া। জানা গিয়েছে চোখের সামনে একজনকে ভেসে যেতে দেখে আর নিজেকে শান্ত রাখতে পারেননি ওই নুলিয়া। সঙ্গে সঙ্গে নিজের জীবন বিপন্ন করে মৃত্যুর মুখ বাঁচিয়ে আনেন কলকাতার ওই পর্যটককে।

ঘটনার আকস্মিকতায় জ্ঞান হারান ওই পর্যটক। জানা গিয়েছে তড়িঘড়িতাঁকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা হয় দীঘা স্টেট জেনারেল হাসপাতালে । বর্তমানে ওই হসপাতালেই তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।