বিশাখাপত্তনম: শুক্রবার দ্বাদশ আইপিএলের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে দিল্লিকে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট পেল ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস৷ এই নিয়ে ১০ মরশুমে (আইপিএলের ১২ মরশুমের মধ্যে দু’বছরের নির্বাসনে ছিল চেন্নাই) ৮ বার ফাইনাল খেলার ছাড়পত্র পেল সিএসকে৷ নিসন্দেহে টুর্নামেন্টের ইতিহাসে সবচেয়ে ধারাবাহিক দল হুইসেল পডু এক্সপ্রেস৷ তিনবারের আইপিএল চ্যাম্পিয়ন চেন্নাইয়ের পর টুর্নামেন্টে সবচেয়ে বেশি ফাইনাল খেলার রেকর্ড রয়েছে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের৷ দ্বাদশ আইপিএল নিয়ে মুম্বই পঞ্চমবারের জন্য ফাইনালের টিকিট পেয়েছে৷

আরও পড়ুন- দাদার দিল্লি’র ব্যান্ড বাজিয়ে ফাইনালে ধোনির ‘হুইসেল পডু’

একনজরে ধোনির চেন্নাইয়ের ১০ মরশুমে ৮ ফাইনালের খুঁটিনাটি-
১) ২০০৮ সালে প্রথম আইপিএলে রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে ফাইনালে খেলেছিল চেন্নাই৷ ফাইনালের অবশ্য চেন্নাইকে ৩ উইকেটে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় রাজস্থান

২)২০০৮ পর ২০১০ সালে ফের ফাইনালে সুপার কিংস৷ এবার মুম্বইকে ২২ রানে হারিয়ে প্রথমবারের জন্য আইপিএল চ্যাম্পিয়ন ধোনিব্রিগেড৷

৩)২০১১ সালে চিদাম্বরম স্টেডিয়ামে আরসিবিকে ৫৮ রান হারিয়ে দ্বিতীয়বারের জন্য চ্যাম্পিয়ন হয় চেন্নাই৷

৪) টানা দু’বার ট্রফি জিতে হ্যাটট্রিকের প্রত্যাশা জাগালেও স্বপ্ন সত্যি হয়নি চেন্নাইয়ের৷ ২০১২ সালে চেন্নাইকে ৫ উইকেটে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় কলকাতা

৫) পরের বার ২০১৩ সালে চেন্নাইকে ২৩ রানে হারিয়ে টুর্নামেন্টের ইতিহাসে প্রথমবারের জন্য চ্যাম্পিয়ন হয় মুম্বই ইন্ডিয়ান্স৷

৬) ২০১৫ সালে ফের ফাইনালে মুম্বইয়ের কাছে হার স্বীকার চেন্নাইয়ের৷ সেবার ফাইনালে ৪১ রানে ম্যাচ হারে ধোনিরা৷

৭) দু’বছরের নির্বাসন থেকে প্রত্যাবর্তন করে ২০১৮ সালে সানরাইজার্সের বিরুদ্ধে ফাইনালে জয় চেন্নাইয়ের৷ ফাইনালে হায়দরাবাদকে ৮ উইকেটে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় মাহি অ্যান্ড কোম্পানি৷

৮) ২০১৮ পর ২০১৯, আরও একবার ফাইনালে ধোনির চেন্নাই এক্সপ্রেস৷

সব মিলিয়ে দু’বছরের নির্বাসন বাদ দিলে টুর্নামেন্টে ১০ মরশুম খেলে ৮ বার ফাইনালে ওঠার অনন্য রেকর্ড গড়ল চেন্নাই সুপার কিংস৷

আরও পড়ুন- সমর্থককে ঘুসি মেরে ৩ ম্যাচ নির্বাসিত নেইমার