নয়াদিল্লি: বিরাট কোহলির নেতৃত্বে প্রথমবার বিশ্বকাপে নামছে ভারত৷ তবে বিরাটের সঙ্গে রয়েছে দু’টি বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়কের অভিজ্ঞতা৷ নেতা বিরাট হলেও উইকেটের পিছনে থাকবে মহেন্দ্র সিং ধোনির প্রখর মস্তিস্ক৷ বিরাট-ধোনির কম্বিনেশনে আসন্ন বিশ্বকাপে ভারতকে ফেভারিট মানছেন ১৯৮৩ বিশ্বকাপ জয়ী ভারত অধিনায়ক কপিল দেব৷

৩০ মে থেকে ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের মাটিতে বসছে দ্বাদশ বিশ্বকাপের আসর৷ ভারত অবশ্য বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করবে ৫ জুন৷ টাইটানিকের শহর সাউদাম্পটনে বিরাটদের প্রথম প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা৷ ধোনি ও কোহলির আনম্যাচেবেল কম্বিনেশনে বিশ্বকাপে ভারতকে এগিয়ে রাখছেন কপিল৷ ’৮৩-র বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়কের মতে, ‘ধোনি ও বিরাট ভারতের হয়ে দারুণ খেলেছে৷ দু’জনে আনম্যাচেবেল৷’

১৯৯২-এর পর ফের রাউন্ড-রবিন ফর্ম্যাটে হচ্ছে বিশ্বকাপ৷ অর্থাৎ প্রতিটি দল প্রত্যেকের সঙ্গে খেলবে৷ লিগের প্রথম চারটি দল সেমিফাইনাল খেলবে৷ ভারতীয় দল নিয়ে আশাবাদী কপিল৷ বুধবার প্রোমোশনাল ইভেন্টে তিনি বলেন, ‘ভারতীয় দল তরুণ ও অভিজ্ঞতার সংমিশ্রণ৷ অন্য দলের থেকে ভারতীয় দলের অভিজ্ঞতাও বেশি৷ চার ফাস্ট বোলার ও তিন স্পিনারে ব্যালান্স দল৷ এর সঙ্গে রয়েছে বিরাট কোহলি ও ধোনির মতো খেলোয়াড়৷’

বিরাট ও ধোনি ছাড়াও রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, মহম্মদ শামির মতো অভিজ্ঞ এবং জসপ্রীত বুমরাহ, হার্দিক পান্ডিয়া ও কুলদীপ যাদবের মতো তরুণ্য দলে রয়েছে৷ ইংল্যান্ডের পরিবেশ ও আবহাওয়ায় ভারতীয় পেসাররা ভালো করবে বলে মনে করেন কপিল৷ কিংবদন্তি পেসার বলেন, ‘আমাদের দলে চারজন দারুণ ফাস্ট বোলার রয়েছে৷ ইংলিশ কন্ডিশনে বল সুইং করবে৷ এই পরিবেশে শামি, বুমরাহরা ঘণ্টায় ১৪৫ কিমিতে বল করতে পারে৷’

১৯৯৯-২০০০ সালে ভারতীয় দলের কোচের পদ সামলানো কপিলের মতে, বিশ্বকাপে ভারত, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া সেমিফাইনাল খেলবে৷ তিনি বলেন ‘ভারত শেষ চারে লিগ শেষ করবে৷ কিন্তু তার পর কঠিন৷ সেমিফাইনালে পারফরম্যান্সের পাশাপাশি ভাগ্যের সহায় হতে হবে৷ ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া ও ভারত হল টুর্নামেন্টের সেরা তিন দল৷ নিউজিল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ হতে পারে সারপ্রাইজ প্যাকেজ৷’