ম্যাঞ্চেস্টার: জীবনের শেষ বিশ্বকাপ ম্যাচটা বুধের ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে খেলে ফেললেন ধোনি। ৪৯.৩ ওভারে স্কোয়্যার লেগ থেকে গাপ্তিলের স্বপ্নের থ্রো উইকেট ভাঙতেই স্বপ্নভঙ্গ আসমুদ্র-হিমাচলের। ২ রান নিতে গিয়ে মাহি রান আউট হতেই বিশ্বকাপ ফাইনালের যাবতীয় আশা শেষ হয়ে গেল টিম ইন্ডিয়ার। ধোনি-জাদেজার বুধবারের মহাকাব্যিক লড়াইকে অনুরাগীরা কুর্নিশ জানালেও আউট হওয়ার পর চোয়াল শক্ত রেখে মাহির চোখে-মুখে বিষন্নতার ছাপ দেখে চোখ ছলছল হয়ে উঠেছিল ১৩০ কোটির দেশের।

কারণ ৯২ রানে ৬ উইকেট হারানোর পরেও ক্রিজে যতক্ষণ ধোনি ছিলেন ম্যাচে শ্বাস ছিল ততক্ষণ, হাড়ে-হাড়ে জানত গোটা ভারতবাসী। আউট হওয়ার পর নাকি এক মুহূর্ত সময় নষ্ট করেননি ধোনি। আউট হতেই টিম হোটেলে হাঁটা লাগান মাহি, খবর তেমনটাই। টুর্নামেন্ট জুড়ে মন্থর ইনিংস নিয়ে প্রবল সমালোচনার পর সেমিফাইনালকে উইলো হাতে জবাব দেওয়ার যোগ্য মঞ্চ হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন বিশ্বজয়ী প্রাক্তন অধিনায়ক। ৭২ বলে ৫০ রান করে যখন মাঠ ছাড়ছেন মাহি, শূন্যতা গ্রাস করেছিল ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের নীল সমুদ্রের গ্যালারিকে। অবসর কবে নেবেন তা স্বয়ং তিনিই জানেন।

সাংবাদিক সম্মেলনে কোহলিকে এব্যাপারে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি জানান ধোনির অবসরের বিষয়ে কিছু জানা নেই তাঁর। না, জীবণের শেষ বিশ্বকাপ ম্যাচে ধোনির লড়াইকে সেভাবে কুর্নিশ জানাতেও শোনা যায়নি কোহলিকে। উলটে প্রথম সারির ব্যাটিং ব্যর্থতায় প্রথম ৪৫ মিনিটেই ম্যাচ হেরে গিয়েছিল দল, দলনায়ক জানালেন তেমনটাই। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠতে বাধ্য ধোনি-জাদেজার অদম্য লড়াই কী তবে একবারের জন্যও ভরসা দেয়নি অধিনায়ককে? উত্তর অজানা।

তবে বিরাট না করলেও কিউয়ি অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের গলায় ধোনিস্তুতি। সাংবাদিক সম্মেলনে নিউজিল্যান্ড অধিনায়কের মন্তব্য, ‘এমন অবস্থা থেকে বহুবার ম্যাচ জিতিয়েছে ধোনি। তাই আমার মতে ওর রান আউটটাই মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছে ম্যাচের।’ একইসঙ্গে কিউয়ি অধিনায়কের প্রশ্ন, ধোনি কি তাঁর নাগরিকত্ব বদলাতে পারবেন? সেক্ষেত্রে নিউজিল্যান্ড দলে তাঁকে স্বাগত।’

কারণ হিসেবে কেন জানিয়েছেন, ‘ধোনি একজন বিশ্বমানের ক্রিকেটার। ওর অভিজ্ঞতা যে কোনও দলের কাছে সম্পদ, দীর্ঘ কেরিয়ার এবং গোটা টুর্নামেন্ট জুড়ে ভারতীয় ক্রিকেটে ওর অবদান ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ।’