নয়াদিল্লি: আইপিএল শুরু হওয়ার কথা ঘোষিত হলেও এখনও পুরোদমে প্র্যাকটিস শুরু করেননি ভারতীয় ক্রিকেটাররা৷ তাই লকডাউনে এখনও পরিবারের ছুটির মেজাজে রয়েছেন তাঁরা৷

সোমবার পুত্র জোরাভারের সঙ্গে ইনস্টাগ্রামে একটি ছবি পোস্ট করেছেন টিম ইন্ডিয়ার বাঁ-হাতি ওপেনার শিখর ধাওয়ান। ছবিতে দেখা যাচ্ছে গাড়ির মধ্যে মজার ছলে রয়েছে পিতা-পুত্র৷ দু’জনকে মজাদার সময় কাটাতে দেখা গিয়েছে। ধাওয়ান তার পোস্টের ক্যাপশনে হ্যারি পটারের বইয়ের একটি উল্লেখ করে লিখেছেন, “Mischief Managed” অর্থাৎ দুষ্কৃত পরিচালনা।

হ্যারি পটার সিরিজে ‘ম্যারাডার্স ম্যাপ’-এর জন্য “দুষ্কর্ম পরিচালিত” শব্দটি ব্যবহৃত হয়েছিল। যখনই কেউ পার্চমেন্টে বিশদটি গোপন করতে চেয়েছিল, এই নির্দিষ্ট শব্দ ব্যবহার করা হয়েছিল। করোনা ভাইরাসের কারণে গত চার মাস ধরে লকডাউন সোশাল মিডিয়ায় ব্যস্ত হয়েছেন ভারতীয় দলের ক্রিকেটাররা৷ এঁদের মধ্যে বেশি সোশাল মিডিয়ায় একটিভ থাকেন ধাওয়ান৷

লকডাউনে বিভিন্ন সময়ে সোশাল মিডিয়ায় তাঁর ভক্তদের জন্য মজাদার পোস্ট ভাগ করে থাকেন ভারতীয় দলের এই ব্যাটসম্যান। গত মাসে, সকালে জোরাভারকে বিছানা থেকে নামানোর চেষ্টা করার সময় ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেছিলেন ধাওয়ান।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়র লিগের আসন্ন সংস্করণের জন্য প্রশিক্ষণ পুনরায় শুরু করার ছবিও পোস্ট করেছেন ধাওয়ান৷ নিজের একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন সোশাল মিডিয়ায়৷ ভিডিও-তে, ধাওয়ানকে দেখা গিয়েছে মাঠের উভয় প্রান্তে শট খেলতে৷ বলের টাইমিং প্র্যাকটিস করেন বাঁ-হাতি এই ওপেনার৷

আইপিএলের ত্রয়োদশ সংস্করণে দিল্লির বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যানকে দিল্লি-ভিত্তিক ফ্র্যাঞ্চাইজি দিল্লি ক্যাপিটালসের হয়ে খেলতে দেখা যাবে। ২০০৮ সালে আইপিএল অভিষেকের পর থেকে দক্ষিণের ফ্র্যাঞ্চাইজি সানরাইজার্স হায়দরাবদের হয়ে খেলেছেন ধাওয়ান৷ আইপিএল কেরিয়ারে এখনও পর্যন্ত ১৫৯টি ম্যাচ খেলেছে। ৩৩.৪২ গড় এবং ১২৪.৮০ এর স্ট্রাইক-রেটে ৪,৫৭৯ রান করেছেন ধাওয়ান৷

করোনা নামক মহামারীর কারণে চলতি বছরের আইপিএল মার্চ মাস থেকে স্থগিত ছিল৷ কিন্তু অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টি-২০ বিশ্বকাপ স্থগিত হওয়ার পর এই উইন্ডোতে সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে আইপিএল আয়োজন করার কথা ঘোষণা করে বিসিসিআই৷ আইপিএলের ত্রয়োদশ সংস্করণ শুরু হবে ১৯ সেপ্টেম্বর৷ আর ফাইনাল ১০ নভেম্বর৷ ধাওয়ান এবং তাঁর দল এবার ট্রফি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা