ঢাকা:  গোটা বিশ্বজুড়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। গোটা বিশ্বে কয়েক লক্ষ মানুষ করোনার মতো ভয়ঙ্কর মহামারীতে আক্রান্ত। আর এরই মধ্যে চাঞ্চল্যকর দাবি করল ব্রিটেনের দ্য ইকোনমিস্ট। তাঁদের দাবি, ঢাকায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা নাকি সাড়ে ৭ লাখেরও বেশি। শুধু তাই নয়, বাংলাদেশে অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক সংক্রমণ অনেক বেশি বলেও চাঞ্চল্যকর দাবি করেছে।

বাংলাদেশ, ভারত এবং পাকিস্তানে মারণ করোনার সংক্রমণ দ্রুত বাড়ছে। লন্ডনের এক সাময়িকীতে এমনই চাঞ্চল্যকর প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে এই সংস্থা। প্রকাশিত প্রতিবেদনে দ্য ইকোনমিস্ট বলছে, বাংলাদেশে সরকারিভাবে করোনায় আক্রান্তের যে সংখ্যা জানানো হচ্ছে প্রকৃত সংখ্যা তার চেয়েও অনেক বেশি। কম পরীক্ষার অর্থই হচ্ছে প্রকৃত চিত্র আরও বেশি খারাপ হতে পারে।

যদিও সরকারি হিসেবে বাংলাদেশে এখনও পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬০ হাজার ৩৯১ জনেরও বেশি কিছু মানুষ। এদের প্রায় অর্ধেকই ঢাকার। এই দিন সকাল ৮টা অবধি ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৩০ জনের মৃত্যু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৮১১ তে গিয়ে দাঁড়িয়েছে। ইকোনমিস্টের প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, তিন দেশে সরকারিভাবে প্রকাশিত আক্রান্ত ও সংক্রমণের সংখ্যা অপেক্ষাকৃত পরিমিত দেখাচ্ছে।

তবে এখনও অনেক মানুষ আক্রান্ত হলেও গণনার বাইরে রয়েছে বলে দাবি এই সংস্থার। লকডাউন প্রত্যাহারের আগে থেকেই তা নিয়ে ভয় ছিল। এখন সেই ভয় আরও বাড়ছে বলছে মনে করছে তাঁদের গবেষকরা।

বাংলাদেশে যে গতিতে ভাইরাসের সংক্রমণ হচ্ছে তাতে প্রতি দুই সপ্তাহে আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হচ্ছে।

তবে কিছু ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছে, এই অঞ্চলে করোনা সর্বোচ্চ চূড়ায় পৌঁছবে আগামী জুলাইয়ের শেষের দিকে। শুধু তাই নয়, সেই সময়ে সরকারি পরিসংখ্যানেও আক্রান্ত ৫০ লাখে পৌঁছাতে পারে এবং মৃত্যু ছাড়াতে পারে দেড় লাখ যাবে বলে আভাষ দেওয়া হয়েছে।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প