স্টাফ রিপোর্টার, বর্ধমান: প্রেস্টিজ ফাইট। তৃণমূল ও বিজেপির পাখির চোখ বর্ধমান-দুর্গাপুর লোকসভার আসন। দুটি রাজনৈতিক দলই এই আসনকে জেতার জন্য একেবারেই আদাজল খেয়ে মাঠে নেমেছে। রীতিমত হেভিওয়েট থেকে সেলিব্রেটিদের নিয়ে এসে ভোটারদের মন জয়ের চেষ্টা চলছে।

সোমবারই বর্ধমান-দুর্গাপুর লোকসভা আসনের প্রার্থী মমতাজ সংঘমিতাকে জেতানোর জন্য দেওয়ানদিঘীতে নির্বাচনী জনসভা করে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। ৭২ ঘন্টার মধ্যেই ফের তিনি দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে বর্ধমানে ঐতিহাসিক পদযাত্রায় সামিল হতে বুধবার আসছেন। বুধবার তিনি বর্ধমানের স্পন্দন থেকে উল্লাস পর্যন্ত পদযাত্রায় সামিল হবেন। আর খোদ তৃণমূল সুপ্রিমোর এই বর্ধমান আসাকে ঘিরেই শুরু হয়েছে ব্যাপক উন্মাদনা।

হঠাত করেই বর্ধমান-দুর্গাপুর লোকসভা আসনকে নিয়ে কেন এত মাতামাতি তা নিয়েই এখন সরগরম চায়ের দোকান থেকে রাস্তাঘাট, অফিস কাছারি। ৭২ ঘণ্টার ব্যবধানে মমতা বন্দোপাধ্যায় এভাবে বর্ধমানে কখনও এসেছেন কিনা তা নিয়েও চলছে চর্চা।

বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের সভায় আগামী ২৯ এপ্রিল বর্ধমান জেলায় লোকসভা নির্বাচন উত্তাপ এক লাফেই অনেকটা উর্ধমুখী হয়ে উঠেছিলই। আর মঙ্গলবার সেই উত্তাপকে কার্যত ঝোড়ো হাওয়ায় পরিণত করে দিয়ে গেলেন তৃণমূলের সাংসদ ও ঘাটালের প্রার্থী দীপক অধিকারী ওরফে দেব। মঙ্গলবার বিকালে তিনি বর্ধমান শহরের নবাবহাট থেকে বর্ধমান ষ্টেশন পর্যন্ত রোড শো করেন।

আর এদিন দেবকে দেখার জন্যই কাতারে কাতারে মানুষ ভিড় করেছিলেন দুপুর থেকেই জি টি রোড বরাবর। বিকাল প্রায় পৌনে চারটে নাগাদ বর্ধমানের একটি অভিজাত হোটেল থেকে এসে হুড খোলা গাড়িতে ওঠেন দেব। তাঁর সঙ্গে ছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি স্বপন দেবনাথ৷

রাজ্যের শাসক দলের প্রচার মিছিল, মূল আকর্ষণ দেব৷ যে আগ্রহে শিশু কোলে মা থেকে স্কুলের ছেলেমেয়েরাও সামিল হয়েছিল রাস্তায়। কাতারে কাতারে মানুষ নবাবহাট থেকে দেবের হুড খোলা গাড়ির পিছনে যাওয়ায় এদিন জি টি রোডের দুদিকই কার্যত অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে।

লাগাতার প্রচারে অংশ নিতে নিতে এদিন কিছুটা অসুস্থ বোধ করেন স্বপন দেবনাথ। যদিও তিনি তা স্বীকার করেননি। এদিকে ষ্টেশন মোড় পর্যন্ত এই দেব আসার পর রীতিমত হুড়োহুড়ি শুরু হয়। চুড়ান্ত বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। জনতার হুড়োহুড়িতে বেশ কয়েকজন রাস্তায় পড়েও যান। অল্পের জন্য তাঁরা পদপিষ্ট হওয়ার হাত থেকে রক্ষা পান। কার্যত জনতার চাপ দেখেই এদিন ষ্টেশন মোড় থেকে দেবকে পুলিশ রওনা করিয়ে দেন।

দেবের মতোই প্রচারে আসার কথা বসিরহাট কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অভিনেত্রী নুসরতের৷ তৃণমূল কংগ্রেসের এই প্রচারে ঝড় তোলার পাশাপাশি একেবারেই ওস্তাদের মার শেষ রাতের মতই প্রচারের শেষ দিন শনিবার বর্ধমানে খোদ নরেন্দ্র মোদিকে নিয়ে আসার বিষয়ে গেরুয়া শিবিরে শুরু হয়ে গেছে চূড়ান্ত তত্পরতা।