কলকাতা- বাংলার পরিস্থিতি ক্রমশ অশান্ত হয়ে উঠছে। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদ রীতিমতো ভয়ঙ্কর রূপ নিয়েছে। ইতিমধ্যেই রাজ্যের বেশ কয়েকটি জেলার পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে যে বন্ধ হয়েছে ইন্টারনেট পরিষেবাও। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মানুষকে শান্ত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। এবার এই প্রসঙ্গে শান্তি বজায় রাখার বার্তা দিলেন তারকা-সাংসদ দেব অধিকারী।

দেব রবিবার রাতে টুইট করেন, “দেশে সরকার থাকবে,সরকার আইন কানুন তৈরি করবে। পছন্দ না হলে তার প্রতিবাদ করাটাই স্বাভাবিক। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তো বলেছেন,এই আইন এখানে লাগু করা হবে না। প্রতিবাদ করুন,আন্দোলন হোক কিন্তু আইন হাতে নেওয়া বা সরকারি সম্পত্তিতে আগুন লাগানো গণতান্ত্রিক আন্দোলনের পদ্ধতি নয়।বিনম্র অনুরোধ।”

লোকসভায় যেদিন নাগরিকত্ব বিল পাশ হল, সেদিন অনুপস্থিত ছিলেন দেব। জানা যায় ছবির শ্যুটিং-এর কারণেই এদিন অনুপস্থিত ছিলেন তিনি। এর জন্য সমালোচনার মুখে পড়তে হয় ঘাটালের তৃণমূল সাংসদকে। দেব ছাড়াও আরও ৫ তৃণমূল সাংসদ অনুপস্থিত ছিলেন এদিন। এঁদের মধ্যে ছিলেন মিমি চক্রবর্তীও। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও নাকি এই তৃণমূল সাংসদরা অনুপস্থিত ছিলেন।

এদিকে রাজ্যের অবস্থা বেগতিক দেখে কালীঘাটের বাড়িতে জরুরি বৈঠকে বসেছেন মুখ্যমন্ত্রী। বৈঠকে রাজ্যের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে সার্বিক আলোচনা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। সেখানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্য পুলিশকে সতর্ক এবং সক্রিয় থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। এছাড়াও, হাঙ্গামা হলেই কড়া হাতে মোকাবিলা করার জন্যে পুলিশ-প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানা যাচ্ছে। রাজ্যের পাশাপাশি কলকাতা পুলিশকে কড়া হাতে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্যে রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান নির্দেশ দিয়েছেন বলে সূত্রে জানা গিয়েছে।

সেখানে উপস্থিত ছিলেন প্রশাসন-পুলিশের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা। মুখ্যমন্ত্রী তাঁদের কাছে গোটা রাজ্যের সাম্প্রতিক পরিস্থিতির খোঁজ নেন। কোথায় কি অবস্থা, সে বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য নেন বলে জানা যাচ্ছে।