দার্জিলিং: আচমকা বৃষ্টির আনাগোনা। সেই মেঘলা আকাশে দক্ষিণবঙ্গে হালকা শীত আমেজ। কিন্তু উত্তরবঙ্গের পাহাড়ি এলাকা বিশেষ করে দার্জিলিংয়ে জাঁকিয়ে ঠাণ্ডা। নতুন করে তুষারপাত হয়েছে বিখ্যাত টাইগার হিলে। গুঁড়ি গুঁড়ি তুষার বৃষ্টিতে হিমাঙ্কের নিচে নেমে গিয়েছে তাপমাত্রা। শেষ শীতের বেলায় এটা উপরি পাওনা।

বুধবার সকাল থেকেই দার্জিলিং জেলার পার্বত্য এলাকার সান্দাকফু,ফালুট-মেঘমা সর্বত্রই তুষারে মুড়ে দিয়েছে। কাঞ্চনজঙ্ঘা বেষ্টিত ভারত- নেপাল সীমান্তের পাহাড়ি গ্রামগুলি তুষারপাতের কারণে প্রায় বিচ্ছিন্ন। রাস্তায় বরফ জমে এই সব এলাকার পাহাড়ি পথে যাতায়াত সাময়িক বন্ধ। মঙ্গলবার রাত থেকে বৃষ্টি হওয়ায় টাইগার হিলে ভোর শুরু হয় তুষারপাত দিয়ে। আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, বৃষ্টির কারণে তুষারপাত।

তাতেই সান্দাকফু বরফে ঢেকে গিয়েছে। তুষারপাত হওয়ার সম্ভাবনা থাকছে দার্জিলিংয়ের অপর শৈলশহর কার্শিয়াং, কালিম্পং জেলার কিছু অংশে। শিলিগুড়ি ছাড়িয়ে অল্প উপরে উঠলেই অনুভব করা যাচ্ছে হিমেল হাওয়া। ঘুম ছাড়িয়ে দার্জিলিং শহরের পথে কনকনে ঠাণ্ডা। শেষ বেলায় গোল করে বাজিমাত চলতি বছরের শীত বাবাজির।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ