নিউইয়র্ক : বাইরে বেরোলে ফেস মাস্ক আবশ্যিক। কিন্তু এই ফেস মাস্কের জন্য দেখা দিচ্ছে নতুন ধরণের সমস্যা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কের ডেন্টাল হাসপাতালের চিকিৎসকরা তেমনই জানাচ্ছেন।

তাঁরা বলছেন, ফেস মাস্ক থেকে দাঁতের সমস্যা, মাড়ির সমস্যা ছড়াচ্ছে. এমন অভিযোগ নিয়ে নাকি শতাধিক রোগি তাঁদের কাছে আসছেন বলে দাবি ডাক্তারদের। কেন দাঁত-মাড়ির সমস্যা বাড়ছে, এই বিষয়ে গবেষণা চালিয়েছেন ডাক্তাররা।

আর তাতে দেখা গিয়েছে যে দীর্ঘক্ষণ ফেস মাস্ক পরে থাকার কারণে তাঁদের এই সমস্যা হচ্ছে। যার পরিচিত নাম তাঁরা দিয়েছেন মাস্ক মাউথ। মাড়ি ফুলে যাওয়া, মাড়ি থেকে রক্তক্ষরণ হচ্ছে।

রোগিরা জানাচ্ছেন, এই ধরণের সমস্যা তাঁদের আগে কখনও ছিল না। আর এরপরেই এই বিষয়ে গবেষণা চালান ডাক্তাররা। আর তাতেই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসে। ফক্স নিউজকে দেওয়া সাক্ষাতকারে ডেন্টাল হসপিটালের চিকিৎসক রব রেমন্ডি জানান, যেসব রোগিরা দাঁতের বা মাড়ির সমস্যা নিয়ে আসছেন, তাদের এই ধরণের সমস্যা কখনও ছিল না।

প্রায় ৫০ শতাংশ রোগির সমস্যা তৈরি হয়েছে, যা মাস্ক পরার ফলে হচ্ছে।শুধু দাঁতের সমস্যাই নয়, শ্বাসকষ্টের সমস্যাও বাড়ছে মাস্ক একটানা পরে থাকার ফলে। রোগিরা শ্বাসকষ্টের দিকে নজর দিচ্ছেন। ফলে কিছুটা হলেও ধামা চাপা পড়ছে দাঁতের সমস্যা। এতে ভবিষত্যে কষ্ট বাড়ার আশঙ্কা থাকছে।

আরেক চিকিৎসক মার্ক স্কালাফানি জানাচ্ছেন, দাঁতের সমস্যা অবহেলা করলে হৃদরোগের আশঙ্কা থাকে। কিন্তু মাস্কের জন্য কেন দাঁত বা মাড়ির সমস্যা হচ্ছে, প্রশ্ন করেছেন অনেকে। চিকিৎসকরা বলছেন মাস্ক পরে থাকলে মানুষ মুখ দিয়ে জোরে শ্বাস নিচ্ছেন, কারণ নাক দিয়ে শ্বাস নিলে মাস্ক পরে থাকার দরুণ পর্যাপ্ত হাওয়া যাচ্ছে না। এবার মুখ দিয়ে শ্বাস নেওয়ার ফলে ড্রাই মাউথ বা মুখ শুকিয়ে যাচ্ছে।

স্যালাইভা বা থুথু মুখে থাকছে না। এই স্যালাইভা বহিরাগত ব্যাকটেরিয়ার সঙ্গে লড়াই করে ও দাঁতকে সুরক্ষিত রাখে। স্যালাইভা না থাকার কারণে দাঁতের ক্ষতি হচ্ছে ক্রমশ। একই কারণে বাড়ছে মাড়ির সমস্যাও।

এই সমস্যা এড়াতে চিকিৎসকরা প্রচুর জল ও অন্যান্য পানীয় খাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। বারবার ব্রাশ করা, ফ্লস ব্যাবহার করার নির্দেশ দিচ্ছেন। তাঁদের আবেদন মাস্ক পরে নাক দিয়ে শ্বাস নেওয়ার চেষ্টা করুন।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও