নয়াদিল্লি: পঞ্জাবের আম আদমি পার্টির বিধায়কদের কানাডায় গিয়ে অত্যন্ত খারাপ পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হল৷ তাঁদের সঙ্গে কানাডার স্থানীয় প্রশাসন খারাপ ব্যবহার করে তাদের আবার ভারতে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ তাঁরা পার্টিরই কোনও কাজে কানাডা পৌঁছেছিলেন৷

আরও পড়ুন: গো হত্যায় নিষেধাজ্ঞা জারি না করলে গণপিটুনি বন্ধ হবে না, বিজেপি মন্ত্রী

রবিবার কানাডার ওটাবা বিমানবন্দরে পৌঁছন আপের বিধায়ক কুলতার সিং সন্ধবা এবং অমরজিৎ সিং সন্দোয়া৷ তাঁদের দুজনকেই পৌঁছনোর পরেই গ্রেফতার করা হয়৷ দুই নেতাকে জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়৷ এরপর তাদের আবার ভারতে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয়৷ দুই নেতাকেই কানাডায় প্রবেশ করতে না দিয়ে ভারতে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়ার কারণ এখনও পর্যন্ত স্পষ্ট নয়৷ মিডিয়া রিপোর্ট থেকে যতদূর জানা গিয়েছে বিধায়ক কুলতারকে কনাডা এয়ারপোর্টে আটকানো হয়নি৷ কিন্তু এই ঘটনাক্রমে সন্দোয়ার সঙ্গে তিনিও ফেরত আসার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন৷

কুলতার সিং সন্ধবা কোটকাপুর এবং অমরজিৎ রোপরে আম আদমি পার্টির বিধায়ক৷ অমরজিৎ সিং সন্দোয়ার ওপর অপরাধের মামলা চলছে৷ তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি ভাড়া বিড়িতে থাকাকালীন বাড়ির মালকিনের সঙ্গে অশালীন আচরণ করেন৷ ওই মহিলা অশালীন ব্যবহারের পাশাপাশি হুমকি দেওয়া ও মারধোরের অভিযোগ করে মামলা করেছেন৷

আরও পড়ুন: পুরুষদের যৌনসঙ্গমে বাধ্য করে গ্রেফতার গডম্যান

বিধায়ক কুলতার সিং সন্ধবা তাদের ফেরত পাঠানোর বিষয়টিতে জানান, তাঁদের এয়ারপোর্ট থেকে ডিপোর্ট করা হয়নি৷ এইসব ঘটনা পর্যায়ক্রমে ঘটে যায়৷ একের পর এক৷ যার মধ্যে সামঞ্জস্য ছিলনা৷ তিনি বলেন, বিমানবন্দরে মোতায়েন প্রশাসনিক আধিকারিকরা যখন জানতে পারেন যে তিনি একজন বিধায়ক তখন তাঁদের মধ্যে সংশয় তৈরি হয়৷ তারা বুঝতে পারেন নি কানাডায় তাঁরা ব্যক্তিগত কাজে এসেছেন নাকি পার্টির কাজে এসেছেন৷ সেখানকার প্রশাসনিক অধিকর্তারা তাঁদের পরের বার কানাডা ভ্রমণে যাওয়ার আগাম সূচনা দিয়ে যেতে বলেছেন৷