প্রতীতি ঘোষ, বারাকপুর: ফের ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে এক রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় চাঞ্চল্য ছাড়াল বারাকপুর পুরসভা এলাকায়। মৃতের নাম দীপক কুমার দাস (৬৪)। রবিবার রাতে উত্তর ২৪ পরগনার কামারহাটির সাগর দত্ত মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জ্বরে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় ভট্টাচার্য পাড়ার বাসিন্দা দীপক কুমার দাসের। এই ঘটনায় আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে বারাকপুর পুরসভার ১২ নম্বর ওয়ার্ডে।

মৃতের পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে দীপক বাবুর মৃত্যু হয়েছে। তবে কামারহাটি সাগর দত্ত হাসপাতাল থেকে মৃত্যুর শংসাপত্রে ডেঙ্গুর পাশাপাশি অন্যান্য রোগের কারনকেও মৃত্যুর জন্য দায়ী করা হয়েছে। দীপক কুমার দাসের বাড়ি উত্তর ২৪ পরগনার বারাকপুর পুরসভার অন্তর্গত ১২ নম্বর ওয়ার্ডে।

গত ৯ দিন ধরে জ্বরে ভুগছিলেন দীপকবাবু। তার পরিবারের আত্মীয়রা তাকে প্রথমে বারাকপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করে, সেখানে ৬ দিন ভর্তি থাকার পর দীপক বাবুর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে কামারহাটির সাগর দত্ত মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করা হয়।

সেখানে ২ দিন চিকিৎসা চলার পর রবিবার রাতে তার মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় বারাকপুর পুরসভার সাফাই নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মৃতের পরিবারের সদস্যরা এবং স্থানীয় বাসিন্দারা। তাদের বক্তব্য, পুরসভা জঞ্জাল সাফাইয়ে ঠিকমত নজর দেয় না । অন্যদিকে বারাকপুর পুরসভার পুরপ্রধান উত্তম দাস বলেন, “আমি শুনেছি একজন মারা গিয়েছে। তবে বারাকপুরে ডেঙ্গুর প্রকোপ নেই। অন্য কোথাও গিয়ে মশার কামড় থেকেও ডেঙ্গু হতে পারে। পুরসভার সাফাই বা নাগরিক পরিষেবা যথাযথ ভাবে চালু আছে। এই মৃত্যুর কারন খতিয়ে দেখতে হবে ।” এদিকে ব্যারাকপুর পুরসভার ১২ নম্বর ওয়ার্ডে এই ঘটনায় এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে ।