নয়াদিল্লি: ২০১৬-র শেষে বাতিল হয়ে গিয়েছিল সব ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট। সেইসব নোট নিয়ে কি করা হয়েছিল, তা জানাল আরবিআই। নোটবাতিলের পর জমা পড়া যাবতীয় ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট কুচি কুচি করে টুকরো করে তা দিয়ে মন্ড পাকানো হয়েছে। এমনটাই জানিয়েছে, রিজার্ভ ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া। তারপর তা তোলা হয় নিলামে।

আরবিআই জানিয়েছে, গত বছর ৩০ জুন পর্যন্ত জমা পড়া ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোটের মোট মূল্য ১৫.২৮ ট্রিলিয়ন। সব নোট গুনে গেঁথে, যাচাই করার পর তা রিজার্ভ ব্যাংকের বিভিন্ন অফিসে টুকরো টুকরো করে মন্ড পাকানো হয়েছে। তারপর তা তোলা হয় নিলামে। এই কাজের জন্য আরবিআইয়ের বিভিন্ন শাখায় বসানো হয় অন্তত ৫৯টি কারেন্সি ভেরিফিকেশন অ্যান্ড প্রসেসিং মেশিন। নোট খাঁটি কিনা সেটাও খতিয়ে দেখা হয়।

২০১৬-র ৮ নভেম্বর কালো টাকার রমরমা বন্ধ করা, দুর্নীতি দমন ও জঙ্গিদের বাড়বাড়ন্ত বন্ধ করার লক্ষ্যে বাজার চলতি ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট আচমকা বাতিল করে দেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। গত বছর ৩০ অগাস্ট আরবিআই যে রিপোর্ট পেশ করে তাতে দেখা যায় বাতিল নোটের ৯৯ শতাংশ ব্যাংকিং ব্যবস্থায় ফিরে এসেছে।

এক রিপোর্টে আরবি জানায়, ২০১৭-র জুনের হিসেব অনুযায়ী ১৫.৪৪ লক্ষ বাতিল নোটের মধ্যে ১৬,০৫০ কোটি ফিরে আসেনি।