নয়াদিল্লি: রাজধানী দিল্লিতে সামান্য় বাড়ল সর্বনিম্ন তাপমাত্রার পারদ। টানা এক সপ্তাহ হাড়কাঁপানো শীতে জবুথবু দশা থেকে পুরোপুরি মুক্তি না মিললেও পারদ সামান্য় বাড়াতেও খনিকের স্বস্তিতে দিল্লিবাসী। তবে ঘন কুয়াশার চাদরে ঢেকেছে দিল্লি।

ভোর থেকে কুয়াশার দাপটে বিপর্যস্ত রেল পরিষেবা। কুয়াশায় দৃশ্যমানতা কমে যাওয়ার জেরে সকালে ২১টি ট্রেন দেরিতে চলছে। কুয়াশার জেরে ঘোর বিপাকে পড়েছেন গাড়িচালকরাও। সকালের দিকে দিল্লি ও সংলগ্ন এলাকার একাধিক রাস্তা কুয়াশায় ঢাকা ছিল। আলো জ্বালিয়ে গাড়ি চলচাল করতে দেখা গিয়েছে দিল্লিতে।

বৃহস্পতিবার দিল্লির সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৫.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গত এক সপ্তাহ ধরে প্রবল শৈত্যপ্রবাহের জেরে হাড়কাঁপানো ঠান্ডা দিল্লিতে। দিল্লি ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় জাঁকিয়ে শীতে সন্ধের পর খুব কাজ না থাকলে সকলে ঘরবন্দিই থাকছেন। সবচেয়ে সমস্য়ায় পড়তে দেখা গিয়েছে ফুটপাতে থাকা লোকজনেদের। তবে অনেককেই রাত্রিকালীন আশ্রয় শিবিরে রাখা হয়েছে।

এদিকে, ঠান্ডার পাশাপাশি কুয়াশাও দাপট দেখাচ্ছে রাজধানীতে। ভোর থেকেই কুয়াশার চাদরে ঢাকা পড়ছে দিল্লি। কুয়াশার প্রভাব পড়ছে রেল ও সড়ক পরিবহণে। কুয়াশার জেরে দৃশ্যমানতা কমে যাওয়ায় সমস্য়ায় পড়তে হচ্ছে গাড়িচালকদের। এমনকী ঝুঁকি নিয়ে গাড়ি চালাতে গিয়ে প্রায়ই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনাও। বৃহস্পতিবার কুয়াশার জেরে দিল্লিতে ২১টি ট্রেন দেরিতে চলছে।

আরও পড়ুন – কলকাতায় আসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

ঠান্ডার সঙ্গেই দিল্লিতে ফের বিপজ্জনক অবস্থায় যাচ্ছে বায়ু দূষণ পরিস্থিতি। বৃহস্পতিবার ভোরে রেকর্ড করা দূষণের পরিমাণ ঘেঁটে দেখা যাচ্ছে, দিল্লির একাধিক এলাকা দূষণের ক্ষেত্রে ‘বিপজ্জনক’ বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। এদিন সকালে দিল্লির আনন্দবিহারে এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স বা AQI ছিল ৪১৮। অন্যদিকে আরকে পুরম এলাকার AQI ছিল ৪২৬, যা বিপজ্জনক প্রবণতা বলে চিহ্নিত করা হয়েছে। একইসঙ্গে এদিন ভোরে রোহিনীর AQI ছিল ৪৫৭, বায়ুর গুমণগত মান যাচাইয়ে যা বিপজ্জনক বলেই উল্লেখ করা হয়েছে।

অন্যদিকে, গত কয়েকদিন ধরে দিল্লির পাশাপাশি শৈত্য়প্রবাহ চলেছে বিহারেও। প্রবল শৈত্যপ্রবাহ চলতে থাকায় পাটনার দশম শ্রেণি পর্যন্ত সব স্কুলে ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত ছুটি দেওয়া হয়েছে।

দিল্লির পাশাপাশি সর্বনিম্ন তাপমাত্রা খানিকটা বেড়েছে উত্তরপ্রদেশ ও রাজস্থানেও। দুই রাজ্যেই ৩-৪ ডিগ্রি পর্যন্ত তাপমাত্রা বেড়েছে। একইভাবে হরিয়ানা, পঞ্জাব, পশ্চিম মধ্যপ্রদেশের কয়েকটি এলাকায় গত ২৪ ঘণ্টায় বেড়েছে সর্বনিম্ন তাপমাত্রার পারদ।