নয়াদিল্লি: টাকা ধার করে সময়মত ফেরত না দেওয়ার অপরাধে বন্ধুদের হাতে খুন হতে হল এক ট্যাটু আর্টিস্টকে৷ অভিযুক্ত তিন বন্ধুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ নারকেল কাটার দা দিয়ে এই খুন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, গত এক সপ্তাহ ধরে বাবলু কুমার নামে এক ট্যাটু আর্টিস্ট নিখোঁজ ছিল৷ বাবলুর খোঁজ শুরু করে তার ভাই৷ তল্লাশি চলাকালীন একটি ঝোপে তার মুণ্ডহীন দেহ দেখতে পায় তার ভাই সোনু৷ তার দেহের পাশেই কাটা মাথাটি উদ্ধার করা হয়েছিল৷ প্রাথমিক ভাবে পুলিশ জানিয়েছিল, ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার ধড় থেকে মাথা কেটে আলাদা করা হয়৷পূর্ব দিল্লির পান্ডব নগর থেকে এই দেহ উদ্ধার হওয়ার পর থেকেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছিল এলাকায়৷

সোনু পুলিশকে জানিয়েছিল, গত ১০ ডিসেম্বর ফোন ছাড়াই বাবলু বন্ধুদের সঙ্গে বেরিয়েছিল৷ তার পর থেকে সে আর বাড়ি ফেরেনি৷ সে পুলিশকে এই বিষয় কিছু জানায়নি তার কারণ এর আগেও একাধিকবার বাবলু বন্ধুদের সঙ্গে বেরিয়ে দুই তিন দিন পর বাড়ি ফিরেছে৷ সোনু মনে করেছিল এবারও বাবলু তার বন্ধুদের সঙ্গেই রয়েছে৷ ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ মৃতের বন্ধুদের খোঁজ শুরু করে৷

পুলিশ কর্তারা ধৃতদের জেরা করে জানতে পারে বাবলু তাদের কাছ থেকে বেশ কিছু টাকা ধার করে৷ তবে সময়মত শোধ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দেয় সে৷ তবে সেই টাকা পরে নাকি বাবলু ফেরত দেয়নি বলে অভিযোগ৷ টাকা ফেরত দিতে অস্বীকার করাতেই এই খুন বলে জেরায় জানিয়েছে বাবলুর তিন বন্ধু৷