নয়াদিল্লি: রাজধানী দিল্লিতে করোনার সংক্রমণ ফের উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দিল্লিতে নতুন করে ৩,৩৭২ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে আরও ৪৬ জনের। সব মিলিয়ে শনিবার রাত পর্যন্ত দিল্লিতে নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২ লক্ষ ৬৭ হাজার ৮২২। করোনায় এখনও পর্যন্ত দিল্লিতে ৫ হাজার ১৯৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

দেশে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার কিছুদিনের মধ্যেই দিল্লির করোনা পরিস্থিতি উদ্বেগজনক আকার নিয়েছিল। প্রতিদিন লাফিয়ে বাড়ছিল আক্রান্তের সংখ্যা। সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি দেখে ঘোর দুশ্চিন্তায় পড়ে যায় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

পরিস্থিতি মোকাবিলায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে তৎপরতা নিতে নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই মতো দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সঙ্গে দফায়-দফায় বৈঠক শুরু করেন অমিত শাহ। করোনা মোকাবিলা নিয়ে মাস্টারপ্ল্যান তৈরি হয়।

দ্রুত টেস্ট, চিকিৎসার ব্যবস্থা-সহ একাধিক পরিকল্পনার ফলও মেলে দ্রুত। কয়েকমাসের মধ্যেই দিল্লির করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। তবে গত কয়েক সপ্তাহে দিল্লিতে ফের করোনার চোখ রাঙানি শুরু। প্রতিদিন বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা।

শনিবার একলাফে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়ে ৩৩৭২। একদিনে প্রায় সাড়ে ৩ হাজার মানুষ নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হওয়ায় দুশ্চিন্তা বেড়েছে দিল্লি প্রশাসনের। পরিস্থিতি মোকাবিলায় আরও কী কী পদক্ষেপ করা যায় তা নিয়ে চলছে আলোচনা।

গোটা দেশেই করোনার সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। শনিবার রাত পর্যন্ত ওয়ার্ল্ডোমিটারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী দেশে নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫৯ লক্ষ ৭৯ হাজার ১৯৭।

তবে একদিকে যেমন আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে তেমনি সুস্থও হচ্ছেন অনেকে। দেশে এখনও পর্যন্ত করোনামুক্ত হয়েছেন ৪৯ লক্ষ ২৬ হাজার ২৬৮ জন। দেশে করোনায় এখনও পর্যন্ত ৯৪ হাজার ৪৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।