নয়াদিল্লি: কুয়াশার জেরে রাজধানী দিল্লিতে ব্যাহত রেল ও বিমান পরিষেবা। দিল্লিতে কুয়াশার জেরে দেরিতে চলছে ১০০টি ট্রেন। ৭৫০টিরও বেশি বিমান দেরিতে ওঠানামা করছে বলে জানা গিয়েছে। প্রতিকূল আবহাওয়ার জেরেই দিল্লিতে বিমান চলাচলে সমস্যা দেখা দিয়েছে। বিমানবন্দরের রানওয়েতে ঘন কুয়াশার দাপট, রানওয়েতে দৃশ্যমানতা কমে যাওয়ার বিপত্তি বেড়েছে। একই দুর্ভোগ কলকাতাতেও। রানওয়েতে কুয়াশার জেরে দৃশ্যমানত কম হয়ে বিপত্তি। কলকাতা শনিবার একাধিক বিমান বাতিল করা হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই দুর্ভোগ বেড়েছে যাত্রীদের।

প্রতি বছরের মতো এবারও একই পরিস্থিতি দিল্লিতে। কুয়াশা দাপট বাড়তেই রাজধানীর বিমান ও রেল পরিষেবা ব্যাহত। খারাপ আবহাওয়ার জেরে
শুক্রবার গভীর রাত পর্যন্ত ৪৬টি বিমানের অভিমুখ ঘোরানো হয়েছে দিল্লিতে। মোট ৭৬০টি বিমানের ওঠানা ও নামার সময় বদল হয়েছে। খারাপ আবহাওয়ার জেরে মোট ১৯টি বিমান বাতিল করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

দিল্লিতে জাঁকিয়ে ঠান্ডা পড়েছে। হাড়কাঁপানো ঠান্ডায় জবুথবু দিল্লিবাসী। ঠান্ডার সঙ্গেই রাজধানীর আকাশে ঘন কুয়াশার চাদর। পাল্লা দিয়ে পরিস্থিতি সঙ্গীন করে তুলছে বায়ুদূষণ। রাজধানী দিল্লির বাতাসের গুণগত মানের সূচক এখন ‘বিপজ্জনক পরিস্থিতি’-র স্তরে। বায়ুদূষণের পাশাপাশি এবার কুয়াশার দাপটে জেরবার দিল্লিবাসী। দিল্লির পালাম এলাকায় শনিবার সকালে দৃশমানতা ৩০০ মিটারেরও কম ছিল। কাছ থেকেও স্পষ্টভাবে কিছু দেখা যাচ্ছিল না। এমনকী শনিবার সকালে গাড়ির আলো জ্বেলেও যেতে দেখা গিয়েছে দিল্লির বিভিন্ন এলাকায়। কুয়াশার জেরে ১০০টির কাছাকাছি ট্রেন দেরিতে চলছে বলে জানিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ।

মৌসম ভবন সূত্রে জানা গিয়েছে, শনিবার দিল্লিতে হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। বৃষ্টি হলে রাজধানীতে শীত আরও বাড়ার ইঙ্গিত আবহাওয়া দফতরের। একইসঙ্গে দূষণ বাড়ারও আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। কুয়াশার দাপট শুধু দিল্লিতেই নয়। দিল্লি-সহ উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা, ঝাড়খণ্ড, পঞ্জাব, বিহার, অসম ও মেঘালয়ের বিভিন্ন জায়গাতেও শনিবার সকালে কুয়াশার দাপট লক্ষ করা গিয়েছে।

দিল্লির পাশাপাশি শনিবার সকালে কুয়াশার দাপট দেখা গিয়েছে শহর কলকাতাতেও। ঘন কুয়াশার জেরে কলকাতাতেও ব্যাহত হয়েছে বিমান পরিষেবা। কুয়াশার জেরে কলকাতা বিমানবন্দর থেকে শনিবার ৬টি বিমান বাতিল করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। শুধু শহর কলকাতাই নয়। শনিবার সকাল থেকে কুয়াশার দাপট লক্ষ্য করা গিয়েছে দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলির বেশ কিছু অংশে।