নয়াদিল্লি: করোনার মাত্রাছাড়া সংক্রমণে নাজেহাল দশা দিল্লি সরকারের। পরিস্থিতি সামাল দিতে ফের লকডাউনের পথে যেতে পারে দিল্লির সরকার, মঙ্গলবার এমনই জানালেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। এরই পাশাপাশি করোনা মোকাবিলায় দিল্লিবাসীকে আরও বেশি সচেতন হওয়ার পরামর্শ মুখ্যমন্ত্রীর।

করোনার থার্ড ওয়েভ চলছে দিল্লিতে। লাগামছাড়া সংক্রমণে দিশেহারা কেজরিওয়াল সরকার। রাজধানীর করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বিগ্ন কেন্দ্রীয় সরকারও। করোনা মোকাবিলায় আবারও বেশ কয়েকটি নয়া পদক্ষেপ দিল্লির সরকারের।

বিয়ে ও অন্য সামাজিক অনুষ্ঠানে ২০০ জনের জমায়েতের অনুমতি তুলে নেওয়া হয়েছে। ওই ধরনের অনুষ্ঠানে এবার থেকে ৫০ জন উপস্থিত থাকতে পারবে। এরই পাশাপাশি রাজধানীর যে এলাকাগুলির বাজারে বেশি ভিড় হয় সেগুলি কিছুদিনের জন্য ফের বন্ধ রাখতে তৎপরতা নিচ্ছে কেজরিওয়াল সরকার।

করোনার থার্ড ওয়েভে নাকাল দিল্লি। একদিকে প্রতিদিন হাজার-হাজার মানুষ যেমন নতুন করে সংক্রমিত হচ্ছেন পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুও। চলতি নভেম্বরে দিল্লিতে ১,২০০-এরও বেশি করোনা আক্রান্ত রোগীর মৃত্যু হয়েছে।

গত সপ্তাহে একদিনে দৈনিক সংক্রমণ সাড়ে ৮ হাজার ছাড়িয়েছিল। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীতে নতুন করে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ হাজার ৭৯৭ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে দিল্লিতে মৃত্যু হয়েছে ৯৯ জনের।

পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিচ্ছে সরকার। করোনায় আক্রান্তদের জন্য বিভিন্ন হাসপাতালে অতিরিক্ত ৭৫০বেডের ব্যবস্থা করা হয়েছে। দৈনিক টেস্টের সংখ্যা বহুলাংশে বাড়ানো হয়েছে। দিল্লিতে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। মঙ্গলবার পর্যন্ত স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী দিল্লিতে নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৪ লক্ষ ৮৯ হাজার ২০২। দিল্লিতে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭ হাজার ৭১৩।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I