নয়াদিল্লি: সোমবার ভোরে দিল্লিতে এনকাউন্টার। পুলিশের গুলিতে দুই দুষ্কৃতী নিহত হয়েছে। নিহতদের বিরুদ্ধে আগেই একাধিক অভিযোগ ছিল। বহু চেষ্টাতেও তাদের নাগাল পায়নি পুলিশ। শেষমেশ সূত্র মারফত খবর পেয়ে অভিযান চালায় পুলিশ। পালটা পুলিশের উপরই হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। পালটা জবাবে দুই দুষ্কৃতীর মৃত্যু।

গত কয়েকমাস ধরে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় নিহত দুই দুষ্কৃতীর খোঁজ চালাচ্ছিল পুলিশ। নিহত রাজা কুরেশি ও রমেশ বাহাদুরের খোঁজে দিল্লির বিভিন্ন এলাকায় সোর্সকেও কাজে নামায় পুলিশ। শেষমেশ রবিবার রাতে দিল্লির রোহিনী এলাকার প্রহ্লাদপুরে ওই দুউ দুষ্কৃতীর জড়ো হওয়ার খবর পায় পুলিশ। সূত্র মারফত সেই খবর পেয়েই তৈরি হয় পুলিশের একটি বিশেষ দল। প্রহ্লাদপুরে গিয়েই প্রথমে গোটা এাকা ঘিরে ফেল পুলিশ। রাজা ও রমেশের হদিশ পেতেই প্রথম তাদের আত্মসমর্পণ করতে বলে পুলিশ। তবে পুলিসের সেই আবেদনে পাত্তাই দেয়নি ওই দুষ্কৃতী।

পুলিশের দাবি, এলাকায় অভিযানের খবর পেয়েই পুলিশকে লক্ষ করে হামলা চালাতে শুরু করে ওই দুই দুষ্কৃতী। পুলিশএর ওই দলের সদস্যদের লক্ষ্য করে দুষ্কৃতীরা গুলিও ছোড়ে বলে অভিযোগ। আত্মরক্ষার্থেই পালটা গুলি চালায় পুলিশ। সোমবার ভোর নাগাদ চলা ওই এনকাউন্টারে দুই দুষ্কৃতী নিহত হয়েছে।

যদিও ওই দুষ্কৃতী গুলিবিদ্ধ হওয়ার পরই তাদের হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ। সেখানে তাদের মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। নিহতদের নামে বেশ কয়েকটি মামলা ছিল বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।