নয়াদিল্লি: চলছে সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচন৷ ২৩ এপ্রিল, তৃতীয় দফার ভোটগ্রহণ পর্ব চলছে দেশের ১১৭ কেন্দ্রে৷ তার মধ্যেই বিভিন্ন দলের প্রার্থীদের মনোনয়ন জমা দেওয়ার কাজও অব্যাহত৷ এদিকে এই পরিস্থিতির মধ্যেই টিকিট পাওয়াকে কেন্দ্র করে পদত্যাগের হুমকি দিলেন বিজেপি সাংসদ উদিত রাজ৷

দিল্লিতে সাতটি লোকসভা কেন্দ্রের ৬টি তে প্রার্থীর নাম ঘোষণা করে বিজেপি৷ তবে উত্তর-পশ্চিম দিল্লিতে কে লড়বে তা এখনও ঘোষণা করা হয়নি৷

এদিকে মঙ্গলবার ট্যুইট করে বিজেপি সাংসদ উদিত রাজ হুমকির সুরে জানিয়েছেন, যে কেন্দ্রের জন্য তিনি কাজ করেছেন সেই কেন্দ্রের হয়ে মনোনয়ন জমা দিতে পারবেন বলে আশাবাদী তিনি৷ বিজেপিকে ছাড়তে বিজেপি বাধ্য করবে না বলেই আশা রয়েছে তাঁর৷ তিনি আরও একটি ট্যুইটে স্পষ্ট জানিয়েছেন, আমি টিকিটের জন্য অপেক্ষা করছি, না পেলে দলকে বিদায় জানাবো৷

সোমবার তিনি সাংবাদিকদের জানান, এই বিষয় নিয়ে তিনি দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করছেন৷ তবে বহু চেষ্টা করেও তিনি বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে কথা বলে উঠতে পারেননি৷ উদিত রাজের মতে, দিল্লির বিজেপি সাংসদদের মধ্যে তিনিই সেরা পারফর্মার৷ শুধু তাই নয়, তিনিই বিজেপির একমাত্র দলিত নেতা৷ কিন্তু কেন তার সঙ্গে এমন আচরণ করা হচ্ছে তা তার কাছে অস্পষ্ট বলে জানান তিনি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.