নয়াদিল্লি: করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সঙ্গে সঙ্গে আরও দুই প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে লড়তে হচ্ছে রাজধানী দিল্লিকে। প্রতি বছর তাপমাত্রা নামার সঙ্গে সঙ্গে দূষণের বিরুদ্ধে কঠোর লড়াইয়ে নামতে হয় দিল্লিকে। এবারও তাঁর ব্যতিক্রম হবে না। কিন্তু এবার যুক্ত হয়েছে ভয়াবহ অসুররূপী করোনা।

টানা পঞ্চম দিনেও দিল্লিতে শেষ ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ১০০ জনের বেশি। দূষণ ও শীতের কারণে করোনা প্রাদুর্ভাবের আশঙ্কা থাকছেই। নয়ডার সঙ্গে সঙ্গে গাজিয়াদাবাদ বর্ডারেও দিল্লি থেকে আসা লোকেদের পরীক্ষা করা হচ্ছে।

দিল্লির শীত করোনা সংকট বাড়িয়ে দিয়েছে। করোনার গ্রাফ বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। তাপমাত্রা হ্রাস পাচ্ছে এবং দূষণের বিষাক্ত বাতাসের কারণে রোগীদের অবস্থা আরও গুরুতর হচ্ছে।

আরও পড়ুন – কীভাবে মিলবে রঙিন ভোটার কার্ড, আবেদন করতে হবে বিশেষ উপায়ে

চলতি বছরের নভেম্বরের শীত গত ১৭ বছরের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। সামগ্রিকভাবে, দিল্লি বর্তমানে মহামারি পরিবর্তিত আবহাওয়া এবং ক্রমবর্ধমান দূষণের সঙ্গে একযোগে লড়াই লড়ছে দিল্লি।

দূষণ সম্পর্কিত বিষয় দিল্লিতে করোনার ঝুঁকি বাড়িয়ে তুলছে। ২৫ নভেম্বর দিল্লিতে দূষণ মারাত্মক স্তরে পৌঁছতে পারে। আর এই অবস্থা করোনা রোগীদের জন্য মারাত্মক প্রমাণিত হয়েছে।

দিল্লিতে বর্তমানে ৩৮ হাজারেরও বেশি সক্রিয় কেস রয়েছে। মোট করোনা সংক্রমণ পৌঁছে গিয়েছে ৫ লক্ষ ৪০ হাজারের একটু বেশি। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ করে নতুন করে আক্রান্ত হচ্ছেন।

অবস্থা এমন যে বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনা করে আশঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছে যে পরিস্থিতি আরও গুরুতর হয়ে উঠতে পারে। অন্যদিকে সংক্রমণ রুখতে যাবতীয় চেষ্টা করছে দিল্লি সরকার। তবে করোনা কমার এখনও কোনও লক্ষনই সামনে আসেনি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।