পর্না সেনগুপ্ত:  আগের দিনের বেঁচে যাওয়া রুটি খেতে চান না অনেকেই। হয় কুকুর বা পাখিকে দিয়ে দেন, নয়তো ফেলে দেন। কিন্তু জানেন কি এই বাসি রুটি দিয়ে দারুণ সুস্বাদু কিছু রেসিপি তৈরি করা যায়, তাও খুব সহজে। এরকমই তিনটি রেসিপি রইল এই প্রতিবেদনে।

রুটির পায়েস- চালের পায়েস বা সিমুইয়ের পায়েস এখন পুরোনো।। বাসি রুটি দিয়ে খুব সুন্দর পায়েস বানানো যায়, জানেন কি? বাড়িতে বাসি রুটি আর দুধ থাকলেই নিমেষে বানিয়ে ফেলা যায় এই রুটির পায়েস। বানানোর প্রক্রিয়াটি হল প্রথমে একটা পাত্রে রুটিটা ছোট ছোট টুকরো করে ছিঁড়ে, ফ্রাই প্যানে ঘি গরম করে তার মধ্যে রুটির টুকরো গুলো মুচমুচে করে ভেজে নিতে হবে।

অন্য একটা পাত্রে দুধ জ্বাল দিয়ে ঘন করে নিতে হবে। ঐ দুধের মধ্যে তেজ পাতা ও এলাচ দিয়ে দিতে হবে। দুধটা বেশ ঘন হয়ে গেলে তার মধ্যে চিনি মিশিয়ে দিতে হবে। কিছু পরে আগে থেকে ভেজে রাখা রুটির টুকরো দিয়ে ভাল করে নেড়ে দিতে হবে যাতে তলায় লেগে না যায়।

রুটি গুলো ভিজে রাবরির মতো হলে এবং দুধটা ক্ষীরের মতো হলে নামিয়ে নিতে হবে আঁচ থেকে। উপরে শুকনো নানারকম বাদামকুচি দিয়ে গরম বা ঠান্ডা পরিবেশন করতে হবে। এভাবে তৈরী হয়ে গেল বাসি রুটির পায়েস।

রোটি চটপটা- ছোট ছোট চৌকো করে রুটিগুলিকে ছিঁড়ে নিতে হবে। একটা ফ্রাই প্যানে মাখন গরম করে ভেজে নিন ওই টুকরো গুলো। যেন বেশ মুচমুচে হয়। আরেকটা সসপ্যানে তেল গরম করে তাতে পেঁয়াজ কুঁচি ভাল করে ভাজতে হবে।

এর মধ্যে আদা রসুন বাটা, টমেটো কুচি, একটু অন্য সবজি যেমন গাজর, ফুলকপি, ক্যাপসিকাম কুচি করে দিয়ে দিতে হবে। ভাজতে হতে ভালো করে। ভালো করে ভাজা হয়ে গেলে ওই চৌকো করে ভাজা রুটির টুকরো গুলো এর মধ্যে দিয়ে নেড়ে নিন। ভালো করে মিশিয়ে নাড়াচাড়া করুন। গ্যাস অফ করে গরম গরম পরিবেশন করুন।

ক্রিসপি রুটি কাটলেট- রুটি গুড়ো গুড়ো করে নিতে হবে। এরপর সেদ্ধ আলু মেখে নিন ভালো করে। একটা বাটিতে রুটির গুড়ো, সেদ্ধ আলু, পেঁয়াজ কুচি, আদা কুচি, ধনেপাতা কুচি, কাঁচা লঙ্কা কুচি, ক্যাপসিকাম কুচি, ময়দা, কনফ্লেক্স, নুন, জিরেগুঁড়ো, লেবুর রস, পনির দিয়ে ভালো করে মাখতে হবে।

মিশ্রন থেকে কিছুটা করে নিয়ে কাটলেট এর মতন গড়ে নিতে হবে। ময়দা জল ও নুন দিয়ে গুলে নিতে হবে। কাটলেটগুলি ময়দার ব্যাটারে ডুবিয়ে বিস্কুটের গুঁড়ো মাখিয়ে ছাঁকা তেলে কম আঁচে দুই পিঠ ভেজে নিতে হবে।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।