নয়াদিল্লি: মঙ্গলবারের পর ফের বুধবার করোনা ভাইরাস নিয়ে বৈঠকে বসবেন নরেন্দ্র মোদী। ১৫ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন প্রধানমন্ত্রী। তবে বুধবারের বৈঠকে চমক আসতে চলেছে।

জানা গিয়েছে, বুধবার মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে উপস্থিত থাকতে চলেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। পনেরো রাজ্যের পাশাপাশি, এই ভিডিও কনফারেন্স বৈঠকে থাকছে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিও।

বুধবার প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীদের বৈঠকে সম্ভবত উপস্থিত থাকছেন না পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর বদলে রাজ্যের তরফ থেকে কোনও প্রতিনিধির উপস্থিত থাকার সম্ভাবনা।

দেশে করোনা ভাইরাসের উপদ্রব এবং লকডাউনের ফলে তৈরি হওয়া পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করতে বুধবার মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে এক বৈঠকে বসছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আগামী ৩০ জুনের পরেও লকডাউন বাড়ানো হবে কিনা তা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে আলোচনা করতে চান তিনি।

বুধবার এই বৈঠকে মোট ৬ টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সরাসরি কথা বলবেন। অন্য মুখ্যমন্ত্রীরা বৈঠকে যোগ দিলেও কথা বলার সুযোগ পাবেন না।

গত সপ্তাহেই কেন্দ্রের তরফ থেকে বৈঠকের বিস্তারিত সূচি প্রকাশ করা হয়েছে। তাতেই দেখা গেছে যে ৬ জন মুখ্যমন্ত্রী নিজের মতামত প্রকাশের সুযোগ পাবেন তাঁদের মধ্যে নেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম।

যদিও এর আগে যে সূচি প্রকাশ করেছিল কেন্দ্র তাতে মোট ১৫ টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের নাম ছিল, যার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত ছিল এরাজ্যও। কিন্তু পরে যে সংশোধিত সূচি প্রকাশ করা হয় তাতে নাম বাদ যায় পশ্চিমবঙ্গের। একথা জানার পরেই ক্ষুব্ধ হন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরেই শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের তরফ থেকে দেশের গণতন্ত্রকে নষ্ট করার ও বাংলার মুখ্যমন্ত্রী কণ্ঠরুদ্ধ করার মতো অভিযোগ করা হয় কেন্দ্রের বিরুদ্ধে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জায়গায় উপস্থিত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে রাজ্যের মুখ্যসচিবের।

এই নিয়ে ছয় বার মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করছেন প্রধানমন্ত্রী। শেষ বৈঠক হয়েছিল ১১ই মে। দুদিনের এই ভার্চুয়াল মিটিংয়ে মূলত করোনা পরিস্থিতি আলোচনা করা হবে। মঙ্গলবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রী ২১টি রাজ্য ও কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলের প্রশাসনিক প্রধানদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ