নয়াদিল্লি:  ভারত সফরে মার্কিন প্রসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। হিউস্টনে ‘হাউডি মোদী’র পর আহমেদাবাদে ‘নমস্তে ট্রাম্প’। ঐতিহাসিক এই সমাবেশ ঘিরে উচ্ছ্বাসে ভাসছে গোটা দেশ। এদিন অনুষ্ঠানের শুরুতেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, আমেরিকার মানুষের হৃদয়ে বিশেষ জায়গা রয়েছে ভারতের। তাঁর মতে, ‘আমেরিকা ভারতকে ভালবাসে। আমেরিকা ভারতকে শ্রদ্ধা করে। আমেরিকা সর্বদা ভারতীয়দের বিশ্বস্ত বন্ধু হয়ে থাকবে।’

এরপরেই ভারতের প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে পাশে থাকার বার্তা দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ভারতীয় সেনাকে সবথেকে আধুনিক হেলিকপ্টার দেওয়ার ঘোষণা করেন। ভারত এবং আমেরিকার মধ্যে ৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের (ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ২২ হাজার কোটি টাকা) প্রতিরক্ষা চুক্তি হওয়ার কথা ঘোষণা করেন ট্রাম্প। আগামিকাল মঙ্গলবার এই সংক্রান্ত চুক্তি হওয়ার কথা রয়েছে দুদেশের মধ্যে।

নমস্তে ট্রাম্প অনুষ্ঠানের মঞ্চ থেকে দর্শকদের উদ্দেশ্যে মিস্টার প্রেসিডেন্ট বলেন, আমেরিকা ভারতকে বিশ্বের সেরা ও সবথেকে ভয়ানক মিলিটারি সামগ্রী সরবরাহ করতে প্রস্তুত৷ তিনি বলেন,‘‘আমি অত্যন্ত আনন্দের সঙ্গে ঘোষণা করছি যে মঙ্গলবার আমাদের প্রতিনিধিরা ভারতের সঙ্গে তিন বিলিয়ন ডলারের একটি চুক্তি করতে চলেছে৷ ভারতীয় সেনাবাহিনী এই চুক্তির মাধ্যমে আমাদের দেশ থেকে বিশ্বমানের মিলিটারি হেলিকপ্টার ও অন্যান্য মিলিটারি সামগ্রী কিনতে পারবে ৷’’

একই সঙ্গে মঞ্চ থেকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে আমেরিকার সঙ্গে ভারতের সহযোগিতা আরও দৃঢ় হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে ভারতকে বিশ্বের সেরা ও সবথেকে শক্তিশালী অস্ত্র সরবরাহ করতে প্রস্তুত ৷ আমরা বিশ্বের সেরা অস্ত্র প্রস্তুতকারক দেশ ও এখন আমরা ভারতের সঙ্গে চুক্তি করছি ৷ অত্যাধুনিক বায়ু প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা, সামরিক ও অসামরিক বায়ুসেনার বিমান এই চুক্তির অন্তর্গত ৷’’

অন্যদিকে ২৪টি এমএইচ-৬০ রোমিও হেলিকপ্টার কেনার ব্যাপারে সবুজ সঙ্কেত দিয়েছে প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে ক্যাবিনেট কমিটি। এই হেলিকপ্টারগুলির মূল্য আনুমানিক ২.৫ বিলিয়ন ডলার ৷ এই হেলিকপ্টারগুলি বিশ্বের অত্যাধুনিক সমরাস্ত্রের মধ্যে একটি। এগুলি খুব সহজেই জলের গভীরে লুকিয়ে থাকা সাবমেরিন খুঁজতে পারে। তেমনই খুব সহজেই জাহাজ ধ্বংস করতে পারে৷ তল্লাশি অভিযানেও সমানভাবে পারদর্শী এই কপ্টার। লকহিড মার্টিন প্রস্তুত MH-60 বর্তমানে ব্যবহৃত সি-কিং লায়নের জায়গা নেবে এই কপ্টারগুলি, এমনটাই জানাচ্ছে সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যম।