নয়াদিল্লি: ব্ল্যাক হাই-নেক টপ, বয়েজ কাট চুলে বিশ্বজয়ী ভারত অধিনায়ক কপিলদেবের স্ত্রী রোমি দেব। কবির খানের আপকাপিং বায়োগ্রাফিক্যাল ড্রামা ৮৩’তে প্রকাশ্যে এল দীপিকা পাড়ুকোনের প্রথম লুক। কপিলদেবের চরিত্রে রণবীর কাপুরের প্রথম লুক প্রকাশ্যে এসেছিল আগেই। আর কপিল দেবের স্ত্রী রোমি দেবের চরিত্রে যে অভিনয় করছেন স্বয়ং রণবীর পত্নী দীপিকা পাড়ুকোন, সে কথাও অনুরাগীদের অজানা ছিল না।

রিয়েল লাইফ জুটিকে রিল লাইফেও বিশ্বজয়ী অধিনায়ক ও তাঁর স্ত্রী’র চরিত্রে দেখতে মুখিয়ে ছিলেন অনুরাগীরা। অবশেষে অপেক্ষার অবসান। বুধবার নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে রোমি দেবের চরিত্রে দীপিকার প্রথম লুক প্রকাশ্যে আনলেন অভিনেতা রণবীর সিং নিজেই। ১৯৮৩ কপিলদেবের নেতৃত্বে ভারতের বিশ্বকাপ জয়ের কাহিনী নিয়ে তৈরি পরিচালক কবির খানের এই নয়া বায়োগ্রাফিক্যাল ড্রামা।

রোমি দেবের চরিত্রে ছবিতে নিজের নয়া লুক এদিন নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে আপলোড করেন দীপিকা পাড়ুকোনও। টুইটারে কপিলের চরিত্রে নিজের সঙ্গে রোমি দীপিকার নতুন ছব পোস্ট করে রণবীর এদিন লেখেন, ‘আমার ডানায় বাতাসের মত। হ্যারিকেনের হৃদয়।’ উল্লেখ্য, অনুরাগীদের কাছে ‘হরিয়ানা হ্যারিকেন’ নামেই পরিচিত কপিলদেব।

অন্যদিকে দীপিকা রণবীরের সঙ্গে ৮৩’র প্রথম লুক প্রকাশ্যে এনে জানালেন, ‘দেশের খেলাধূলার ইতিহাসে সেরা মুহূর্ত নিয়ে তৈরি ছবিতে ছোট্ট অথচ গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করতে পেরে অত্যন্ত সম্মানিত। আমি খুব কাছ থেকে আমার মাকে দেখে জেনেছি একজন স্ত্রী তাঁর স্বামীর প্রোফেশনাল এবং ব্যক্তিগত জীবনে সাফল্যের জন্য কীভাবে ভূমিকা পালন করেন। এই ছবিতে আমার চরিত্রের মধ্যে দিয়ে আমি সেই সব মহিলাদের পূর্ণ সম্মান জানাতে চাই যারা স্বামীর স্বপ্নপূরণের জন্য আত্মত্যাগ করেছেন।’

চলতি বছর এপ্রিলাই শুভমুক্তি পাওয়ার কথা ছবিটি। শুটিং শেষ হয়েছে গত অক্টোবরেই। শুটিং চলাকালীন ধরমশালায় খোদ কপিলদেব, মহিন্দর অমরনাথের কাছ থেকেই ক্রিকেটের পাঠ নিয়েছিলেন ছবির কলা-কুশলীরা। মাসকয়েক আগে ছবিতে কপিলদেবের নটরাজ শট নকল করে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ছবি পোস্ট করেছিলেন রণবীর স্বয়ং। যা দেখে কপিল এবং রণবীরের মধ্যে ফারাক বোঝার উপায় ছিল না। এছাড়াও ছবিতে সাকিব সালিম, তাহির রাজ ভাসিন, অ্যামি ভির্ক, হার্ডি সান্ধু, চিরাগ পাতিল প্রমুখরা অভিনয় করছেন ৮৩’র বিশ্বজয়ী দলের বিভিন্ন ক্রিকেটারের চরিত্রে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ