মুম্বই: করোনা মোকাবিলায় সারা দেশ জুড়ে চলছে লকডাউন। বিনোদন জগতের শ্যুটিংও বন্ধ। সবকিছু থমকে গিয়েছে। তাই তারকারাও ঘরবন্দি হয়ে রয়েছেন। আর ঘরে থেকেই পুরো ভোল বদলে ফেলেছেন কার্তিক আরিয়ান। এখন তাঁকে প্রায় চেনা দায়।

ক্লিন শেভড চকোলেট বয় লুকের কার্তিকের মুখে এখন ভর্তি দাড়ি। আর সেই এক মুখ দাড়ি একদমই পছন্দ নয় অভিনেত্রী দীপিকা পাডুকোনের। কার্তিক একটি ইনস্টাগ্রাম লাইভে এসে তাঁর ফলোয়ারদের জিজ্ঞাসা করেন, তাঁর কী করা উচিত? দাড়ি কি কেটে ফেলা উচিত? নাকি আবার আগের লুকে ফিরে যেতে চান তিনি?

বাড়িতে দাঁড়ি নিয়ে কী চলছে, তাও শেয়ার করে নেন কার্তিক আরিয়ান। তিনি বলেন, আমার পরিবারের লোকজন বলছেন আমি যতক্ষণ না পর্যন্ত দাড়ি কাটব, আমায় খেতে দেওয়া হবে না। আমার কী করা উচিত? কার্তিক জানিয়েছেন তাঁর এই একমুখ ভর্তি দাড়ি না-পসন্দ তাঁর মা ও বোনের। তাঁরা বার বার কার্তিককে দাড়ি কেটে ফেলতে বলছেন। এবং না কাটলে খেতে না দেওয়ার হুমকি দিচ্ছেন।

কার্তিকের লাইভ চলাকালীন, সেই লাইভে জয়েন করেন দীপিকা। তিনি নিজের মতামত স্পষ্ট করে জানান। দীপিকার মতে কার্তিকের উচিত দাড়ি কেটে ফেলা। আবার মণীশ মলহোত্রা বলছেন তাঁকে এই দাড়িতেই বেশি কুল লাগছে। আর এই সবে দ্বিধাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন সোনু কি তিত্তু কি সুইটি।

প্রসঙ্গত, কার্তিক দুটি ছবির কাজ নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন লকডাউনের আগে। ভুলভুলাইয়া ২-তে তাঁর বিপরীতে দেখা যাবে কিয়ারা আডবানীকে। অন্যদিকে দোস্তানা ২-তে দেখা যাবে জাহ্নবী কাপুরকে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।