মুম্বই: শোনা যাচ্ছিল, ভারতে নাকি ভোট দিতে পারেন না দীপিকা পাডুকোন। কারণ তাঁর দ্বৈত নাগরিকত্ব আছে। তবে সোমবার ভোট দিয়ে তিনি বুঝিয়ে দিলেন তিনি ভারতেরই নাগরিক।

সোমবার মুম্বইতে ভোট দিয়েছে বহু সেলব্রিটি। সকাল থেকে অমিতাভ বচ্চন, আমির খান, প্রিয়াঙ্কা চোপড়াদের ভোট দিতে দেখা গিয়েছে। এদিনই ভোট দিয়ে সেলফি তুলে ট্যুইট করেছেন দীপিকা। লিখেছেন, ‘আমি কে, কোথা থেকে এসেছি, তা নিয়ে আমার মনে কোনও সন্দেহ কোনোদিনই ছিল না।’

অভিনেত্রী আরও লিখেছেন, ‘যাদের আমাকে নিয়ে সন্দেহ ছিল, তাদের অনুরোধ প্লিজ আর কোনও দ্বিধা রাখবেন না।’ শেষে লিখেছেন ‘জয় হিন্দ’। হ্যাশট্যাগ দিয়ে লিখেছেন, #proudtobeanindian #govote.

এদিন তাঁর স্বামী অভিনেতা রনবীর সিং-ও ভোট দিয়েছেন।

যদিও দীপিকা দক্ষিণ ভারতের মেয়ে। কিন্তু কর্মসূত্রে দীর্ঘদিন ধরেই রয়েছেন মুম্বইতে। তবে প্রাক্তন ব্যাডমিন্টন প্লেয়ার প্রকাশ পাড়ুকোনের মেয়ে দীপিকার জন্ম ডেনমার্কে। ডেনমার্কের কোপেনহেগেনে জন্ম দীপিকার। বড় হয়েছেন বেঙ্গালুরুতে। তাই জানা গিয়েছিল, জন্ম ডেনমার্কে হওয়ায় তাঁর কাছে রয়েছে ড্যানিশ পাসপোর্ট। তাই ভারতে ভোট দিতে পারেন না তিনিও।

এমন অনেকেই আছেন বলিউডে যাঁরা ভারতে থাকলেও বভোটাধিকার নেই। যেমন আলিয়া ব্রিটেনের নাগরিকত্ব পেয়েছেন। তাই দেশে ভোট দিতে পারেন না মহেশ ভাটের কন্যা। অন্যদিকে, পঞ্জাবের অমৃতসরে জন্ম অক্ষয় কুমারের। কিন্তু তিনি ভারতীয় নাগরিক নন। তাই ভোট দিতে পারেন না খিলাড়ি কুমার।

কানাডার তরফ থেকে তাঁকে সাম্মানিক নাগরিকত্ব দেওয়া হয়। ভারতীয় সংবিধান অনুযায়ী, কোনও নাগরিক দ্বৈত নাগরিকত্ব রাখতে পারেন না। তাই অক্ষয় ভারতের নাগরিকত্ব ছাড়তে হয়েছে।

উল্লেখ্য, কিছুদিনের মধ্যেই মুক্তি পাবে দীপিকার নতুন ছবি ‘ছপক।’ অ্যাসিড আক্রান্ত লক্ষীর গল্প নিয়েই ছবি ‘ছপক।’ ইতিমধ্যেই তাঁর লুক ভাইরাল হয়েছে নেটদুনিয়ায়।