নুর-সুলতান: শেষ রক্ষা করতে পারলেন না৷ প্রথমবার বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপে ইংশ নিয়েই ফাইনালে উঠে সকলকে চমকে দিলেও চোটের জন্য খেতাবি লড়াইয়ে অংশ নিতে পারলেন না দীপক পুনিয়া৷ ফলে প্রতিপক্ষকে ম্যাচ ছেড়ে দিয়ে রুপোর পদকই সন্তুষ্ট থাকতে হয় ভারতীয় তারকাকে৷ অর্থাৎ এ-যাত্রায় টোকিও অলিম্পিকের টিকিট ও বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপের সিলভার মেডেল নিয়ে দেশে ফিরছেন ২০ বছর বয়সি জুনিয়র বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন দীপক৷

আরও পড়ুন: নিজে উপেক্ষিত হয়েও কোচকে স্বীকৃতির দাবি ইতিহাস গড়া অমিতের

৮৬ কেজি ফ্রি-স্টাইল ইভেন্টের ফাইনালে ইরানের হাজসান ইয়াজদানির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নামার কথা ছিল দীপকের৷ তবে গোড়ালির চোটের জন্য ম্যাটে নামলেন না ভারতীয় তারকা৷ আগের দিন প্রথম রাউন্ডের লড়াইয়ের সময়েই গোড়ালিতে চোট পেয়েছিলেন তিনি৷ চোট নিয়েই ফাইনালে উঠে নিজের আগ্রাসন জাহির করেন পুনিয়া৷ তবে চোট গুরুতর রূপ নেওয়ায় ফাইনাল ম্যাচ থেকে সরে দাঁড়ানোই শ্রেয় মনে করেন তিনি৷ ফলে ইরানিয়ান কুস্তিগীড়কে সোনা এবং দীপককে রুপোপ পদক প্রদান করা হয়৷

আরও পড়ুন: টোকিও যাত্রা নিশ্চিত করে সোনায় চোখ দীপকের

এবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপে দীপকই প্রথম ভারতীয়, যিনি খেতাবি লড়াইয়ে জায়গা করে নেন৷ সব মিলিয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপের ইতিহাসে পঞ্চম ভারতীয় হিসাবে ফাইনালে ওঠেন৷তাঁর আগে বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে উঠেছিলেন বিশাম্বর সিং (১৯৬৭), সুশীল কুমার (২০১০), অমিত দাহিয়া (২০১৩) ও বজরং পুনিয়া (২০১৮)৷ যদিও সোনা জিতে সুশীল কুমারকে ছোঁয়া সম্ভব হল না তাঁর৷ সুশীলই একমাত্র ভারতীয় কুস্তিগীড়, যিনি বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপে সোনা জিতেছেন৷ দীপক গত বছর জুনিয়র বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপে সোনা জিতেছেন৷

আরও পড়ুন: ঐতিহাসিক রুপো জয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হল অমিতকে

চলতি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের মঞ্চে শুরু থেকেই দুরন্ত ছন্দে ছিলেন দীপক। প্রথম রাউন্ডে কাজাখস্তানের প্রতিদ্বন্দ্বীর বিরুদ্ধে ০-৫ ব্যবধানে পিছিয়ে পড়েও দুরন্ত কামব্যাক করেছিলেন তিনি। শেষ ষোলোয় তুর্কমেনিস্তানের প্রতিদ্বন্দ্বীকে ৬-০ ব্যবধানে পরাজিত করেন চতুর্থ বাছাই ভারতীয় তারকা। এরপর শেষ আটের লড়াইয়ে কলম্বিয়ান প্রতিদ্বন্দ্বীকে ৭-৬ ব্যবধানে হারিয়ে অলিম্পিক টিকিট নিশ্চিত করার পর ফাইনালে পৌঁছন সুইস প্রতিদ্বন্দ্বীকে হারিয়ে।