মেলবোর্ন: গত কয়েক বছর ধরে ঘরোয়া ক্রিকেটে অত্যন্ত ধারাবাহিক ময়াঙ্ক আগরওয়াল৷ ভারতীয়-এ দলের হয়েও ক্রমাগত রান করে গিয়েছেন৷ এক বছররেও বেশি সময় ধরে টিম ইন্ডিয়ার দরজায় কড়া নাড়লেও কোহলির সংসারে ঢোকা যাচ্ছিল না কোনওভাবেই৷ ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে যদিও বা জাতীয় দলের দরজা খোলে, প্রথম একাদশে জায়গা হয়নি৷ অবশেষে অপেক্ষার অবসান হয় মেলবোর্নে৷

মাঠে নামছেন, এটা জেনে গিয়েছিলেন বক্সং ডে টেস্টের আগের দিনই৷ বড়দিনে জীবনের সব থেকে বড় উপহার পেয়েগিয়েছিলেন টিম ম্যানেজমেন্টের স্বীকৃতিতে৷ শেষমেশ বুধবার সকালে এমসিজিতে হাতে পান বহু কাঙ্খিত টেস্ট ক্যাপ৷ পরিণত হন ভারতের ২৯৫ নম্বর টেস্ট ক্রিকেটারে৷

আরও পড়ুন: ময়াঙ্কের ব্যাটে সেহওয়াগকে খুঁজছেন কোচ

পৃথ্বী শ চোট পেয়ে সিরিজ থেকে ছিটকে যাওয়ায় নির্বাচকরা তরুণ মুম্বইকরের পরিবর্তে দলে ঢুকিয়ে দেন ময়াঙ্ককে৷ অস্ট্রেলিয়ায় প্রথম দু’টি টেস্টে মুরলি বিজয় ও লোকেশ রাহুলের ওপেনিং জুটি ব্যর্থ হওয়ায় টিম ম্যানেজমেন্ট নবাগত আগরওয়ালকে বক্সিং ডে টেস্টে খেলানোর সিদ্ধান্ত নেয়৷ নির্বাচক তথা টিম ম্যানেজমেন্টকে হতাশ করেননি ২৭ বছর বয়সি ডানহাতি ওপেনার৷ দলনায়কের আস্থার পূর্ণ মর্যাদা রেখে মেলবোর্নে ৭৬ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলন ময়াঙ্ক৷ গড়েন অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টেস্ট অভিষেকে সর্বোচ্চ ইনিংস খেলা ভারতীয় ক্রিকেটারের রেকর্ড৷

ময়াঙ্কের দারুণ শুরুর জন্যই ভারত প্রথম দিনের শেষে ২ উইকেট ২১৫ রান তুলে বড় ইনিংসের দিকে অগ্রসর হচ্ছে৷ দলকে শক্ত ভিতে বসিয়ে দেওয়া আগরওয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে এসে নিজের আবেগ লুকিয়ে রাখলেন না৷ তাঁর অকপট স্বীকারোক্তি, টেস্ট ক্যাপ হাতে নেওয়ার পর তাঁর ভাবনা জুড়ে ছিল শুধুই একটা সংখ্যা৷ সেটা হল ২৯৫, যা তাঁর ইন্ডিয়া (টেস্ট) ক্যাপ নম্বর৷

আরও পড়ুন: নজির গড়ে হালে পানি দিলেন ময়াঙ্ক

ময়াঙ্ক বলেন, ‘টেস্ট ক্যাপ হাতে নেওয়ার মুহূর্তটা অসাধারণ৷ সেই মুহূর্তে আবেগ ভিড় করে ছিল মনের মধ্যে৷ সারা জীবন মনে থাকবে এই মুহূর্তটা৷ ভাবনা জুড়ে ছিল ২৯৫ নম্বর৷ আবেগে নিয়ন্ত্রণ রেখে ম্যাচে মনোসংযোগ করা সহজ ছিল না৷ তবে সেই রকাজটাই করতে হত আমাকে৷ নিজেকে বার বার বোঝাচ্ছিলাম, যে পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নেমেছি, সেটাকে যথাযথ মেলে ধরতে হবে৷ শেষমেশ যেভাবে খেলেছি, তাতে খুশি৷’

পরে আগরওয়াল আরও যোগ করেন, ‘এতবড় মঞ্চ, এত বড় সুযোগ৷ নিজেকে বলছিলাম এর থেকে বড় দিন, এমন বড় সুযোগ সহজে আসে না৷ আমি খুশি মেলবোর্নে আমার অভিষেক হল৷ তবে নিজের ইনিংসকে আরও একটু টেনে নিয়ে যাওয়া উচিত ছিল৷ দিনের শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকা দরকার ছিল আমার৷’