প্রতীকী ছবি

অমরাবতী: জুয়ার নেশায় ঝণের জালে জড়িয়ে পড়েছিলেন স্বামী৷ ধার শোধ করতে তাই স্ত্রী ও সন্তানদের বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন৷ মোট পাঁচ লক্ষ টাকার বিনিময়ে চার মেয়ে, এক ছেলে ও স্ত্রীকে বেঁচে দেয় সে৷

ঘটনাটি অন্ধ্রপ্রদেশের কুরনুল জেলার৷ বেঙ্কটাম্মা ও মাড্ডিলেটির চার মেয়ে ও এক পুত্র সন্তান আছে৷ মাড্ডির জুয়ার নেশা প্রবল৷ এই জুয়ার চক্করে ঝণগ্রস্ত হয়ে পড়ে সে৷ টাকা শোধ করতে গত বছর ১৭ বছরের মেয়েকে এক আত্মীয়ের কাছে দেড় লক্ষ টাকায় বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয়৷ শর্ত একটাই মেয়ের ১৮ বছর বয়স হলে সেই আত্মীয়ের ছেলের সঙ্গে বিয়ে করতে হবে৷

এ দিকে এক বছরের মধ্যে দেড় লক্ষ টাকা খরচ হয়ে যায়৷ আবারও ঝণের জালে জড়িয়ে পড়ে৷ তখন বাকি তিন মেয়ে, ছেলে ও স্ত্রীকে বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন৷ এই বার বুসি নামে তাঁর এক ভাইয়ের সঙ্গে সওদা করে৷ মোট পাঁচ লক্ষ টাকায় চুক্তি হয়৷ কিন্তু গোল বাধে স্ত্রী বেঁকে বসায়৷ এর জন্য স্ত্রীকে শারীরিক নির্যাতনও করেন৷

তখন প্রাণে বাঁচতে বেঙ্কটাম্মা বাপেরবাড়ি চলে যান৷ তখন বাপের বাড়ি থেকে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়৷
অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করে পুলিশ৷ এক তদন্তকারী অফিসার জানিয়েছে, বুদাগা জানগালু সম্প্রদায়ের মধ্যে স্ত্রী কেনাবেচার চল আছে৷ মাড্ডি এই সম্প্রদায়ভুক্ত৷ অভিযোগে স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীকে নির্যাতনের কথা বলা হয়েছে৷ যতই এই সম্প্রদায়ের মধ্যে স্ত্রী কেনাবেচার প্রথা থাকুক না কেন গোটা পরিবারকে তাদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে বিক্রি করা অপরাধ বলে মানছেন তদন্তকারী অফিসারেরাও৷

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV